Alexa টাকা ও সাদা কাগজে স্বাক্ষর দিয়ে স্বামীকে ছাড়ালেন স্ত্রী

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২২ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৮ ১৪২৬,   ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

টাকা ও সাদা কাগজে স্বাক্ষর দিয়ে স্বামীকে ছাড়ালেন স্ত্রী

 প্রকাশিত: ২২:১৫ ২৭ এপ্রিল ২০১৮  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

টাকা ও সাদা কাগজে স্বাক্ষরের বিনিময়ে মিথ্যা মামলা দেয়ার হুমকি থেকে স্বামীকে বাচালেন চট্টগ্রামের শেখ জসিম আহমেদের স্ত্রী সানজিদা ইয়াছমিন।

এ বিষয়ে তার সরাসরি অভিযোগ পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম ও এসআই শাহাদতের বিরুদ্ধে। তিনি জানান, ৫ লাখ টাকা না দিলে অস্ত্র ও ইয়াবার মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানো হবে তার স্বামীকে, এমন হুমকি দেন ওই দুই পুলিশ কর্মকর্তা। পরে ১ লাখ ৪২ হাজার ৫শ টাকায় রফাদফা হয় তাদের চাওয়া-পাওয়ার। ছাড়া পান ইয়াসমিনের স্বামী জসিম।

শুক্রবার রাজধানীতে ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ক্র্যাব) কার্যালয়ে পাহাড়তলী থানার ওসি ও এসআই’র বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থার দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী শেখ জসিমের স্ত্রী সানজিদা ইয়াছমিন এসব অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রামের হালিশহর থানা এলাকায় বসবাসকারী সানজিদা ইয়াছমিন বলেন, গত ২ মার্চ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আমার স্বামী নাস্তা করতে বাসার পাশের দোকানে গেলে এসআই শাহাদাত তার গাঁয়ে হাত দিয়ে বলেন, তোর বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে। আমার সঙ্গে থানায় যেতে হবে। ওসি স্যার তোকে থানায় যেতে বলেছেন। এ সময় তার কাছে থাকা ১২ হাজার ৫০০ টাকা ওই এসআই জোর করে হাতিয়ে নেয় এবং তাকে থানায় নিয়ে যান। পরে খবর শুনে আমি থানায় গিয়ে ওসির কাছে স্বামীকে ছেড়ে দেয়ার কথা বললে, ওসি আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং রুম থেকে বের করে দেন।

ইয়াসমিন বলেন, এরপর এসআই শাহাদত আমাকে বলে ৫ লাখ টাকা দিলে তোমার স্বামীকে ছেড়ে দেব। আর যদি বেশি বাড়াবাড়ি কর, তাহলে অস্ত্র ও ইয়াবার মিথ্যা মামলা দিয়ে বছরের পর বছর জেল খাটাব। ইয়াসমিন জানান, এই কথা শুনে আমি আবারো ওসির রুমে গেলে, ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন এসব কথা শোনার সময় নেই। তোমার স্বামীর বিরুদ্ধে ২০০ জন ব্যক্তির অভিযোগ রয়েছে। এরপর ওই এসআই আমাকে বলেন, তোমার স্বামীকে ৫ মিনিটের মধ্যে ছেড়ে দেয়া হবে যদি তুমি এখনই ১ লাখ টাকা দাও। অবস্থা বেগতিক দেখে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে রাত ১০টার দিকে ওই এসআই’র হাতে ১ লাখ টাকা দিই এবং সে আমাকে ৩টি সাদা কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে নেয়।

সানজিদা ইয়াছমিন বলেন, আমি একজন আওয়ামী লীগ কর্মী পরিচয় দিলেও এসআই থানার বাথরুমের পাশে নিয়ে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। পরে থানায় এসি পঙ্কজ বড়ুয়াকে দেখে, তার কাছে ঘটনা খুলে বলি। তিনি ওসিকে জিজ্ঞাসা করলে, রফিক কোন জবাব দিতে পারেনি। এসিকে ওসি জানান, ৮৮ ধারায় মামলা দিয়ে সকালে ছেড়ে দেয়া হবে।

ইয়াসমিন বলেন, টাকা পাওয়ার পরও তার স্বামীকে ছেড়ে না দিয়ে অহেতুক মামলা দিয়ে সকালে ছেড়ে দেয়ার কথা বলায় আমি চিন্তায় পড়ে যাই। থানার আরেক এসআই সুনয়ন বড়ুয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করি। সে জানায় আরো ৩০ হাজার টাকা দিলে ওসি আমার স্বামীকে ছেড়ে দেবে। পরে আবারো নানা জায়গা থেকে সংগ্রহ করে এনে ৩০ হাজার টাকা দিলে তারা আমার স্বামী জসিমকে ছেড়ে দেয়।

জসিম আহমেদের স্ত্রী আরো বলেন, গত ৩ মার্চ সন্ধ্যায় এসআই সুনয়ন বড়ুয়া আমাকে ফোন করে ডেকে নিয়ে যান এবং টাকা গ্রহণের কথা কাউকে বললে, আমার বিরাট ক্ষতি হবে বলে হুমকি দেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএএম/এলকে

Best Electronics
Best Electronics