Exim Bank Ltd.
ঢাকা, বুধবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫

ঝুঁকি নিয়ে জাহাজ মেরামত করেন তারা

জান্নাতুল মাওয়া সুইটিডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
ঝুঁকি নিয়ে জাহাজ মেরামত করেন তারা
ছবি: সংগৃহীত

‘আধুনিক যন্ত্রপাতি ছাড়া এখানে লঞ্চ ও জাহাজ মেরামত করা হয়। ভারী লোহার শীটসহ জাহাজের ভারী অংশ সমূহ শ্রমিকদেরই বহন করতে হয়। ঝুঁকি নিয়ে এসব কাজ করতে গিয়ে অনেকে মারাত্মক দুর্ঘটনার শিকার হন এমনকি মারাও যান।’

আক্ষেপ নিয়ে কথাগুলো বলছিলেন বুড়িগঙ্গার তীর সংলগ্ন এক ডকইয়ার্ডের শ্রমিক ২১ বছর বয়সী মোহাম্মদ মামুন। শুধু সে নয় বরং তার মতো ১৫ হাজার শ্রমিক যুক্ত রয়েছে জাহাজ ভাঙা শিল্পে। যারা কোনো নিরাপত্তা সরঞ্জাম বা অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি ছাড়াই দৈনিক ২৫০-৩৫০ টাকা মজুরীর বিনিময়ে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন।

জানা গেছে, বুড়িগঙ্গার তীর সংলগ্ন ঢাকার কেরানীগঞ্জ, হাসনাবাদ, দোলেশ্বর ও চর মিরেরবাগে গড়ে উঠেছে জাহাজ ও লঞ্চ তৈরির বিভিন্ন ডকইয়ার্ড। ছোট বড় মিলিয়ে প্রায় ৩৫টির মত ডকইয়ার্ড রয়েছে। লঞ্চ ও স্টিমার মেরামতসহ এখানে প্রপেলর তৈরী হয়ে থাকে। যা একসময় বিদেশ থেকে আমদানি করা হত।

এসব ঝুঁকিপূর্ণ কাজে শুধু প্রাপ্ত বয়স্করাই নয় বরং আছে শিশু শ্রমিকও। একটি প্রপেলর ওয়ার্কশপে কাজ করে ১২ বছর বয়সি মোহাম্মদ আশরাফুল। তার মতো আরো অনেক শিশুকেই ডকইয়ার্ডে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করতে দেখা যায়। আশরাফুল জানায়, সে মাসে ছয় হাজার টাকা বেতন পায়। সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত কাজ করতে হয় তাকে। সপ্তাহে অবশ্য একদিন ছুটিও পায় সে।

কেরাণীগঞ্জের ডকইয়ার্ডে কাজ করা শ্রমিকদের জন্য নেই কোনো নিরাপত্তা সরঞ্জাম। শ্রমিকরা জানেনও না এ ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ কাজে কিছু নিরাপত্তা সরঞ্জাম পরিধান করার বিধানের কথা। মাঝেমধ্যে দুর্ঘটনায়ও পড়েন অনেকে। জাহাজ ডকইয়ার্ডের আরেক কর্মচারী কামরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি বড় বড় যন্ত্রের কথা জানি না যা সারা বিশ্বের জাহাজ তৈরি করে কিন্তু নিরাপত্তা সরঞ্জাম ছাড়া কাজ এখানে বিপজ্জনক। প্রায় প্রতিনিয়ত কাজ করতে গিয়ে ছোট ছোট জখমের শিকার হতে হয়। একবার আমি পায়ে আঘাত পাই। ১৫ ফুট উচুঁ একটি ঝুলন্ত একটি তক্তার ওপর দাঁড়িয়ে ছিলাম তখন হঠাৎ করেই আমার পা সরে যায় এবং পড়ে গিয়ে আমার পা ভেঙে যায়।’

আরো এক শ্রমিক জানায়, ‘আমাদের শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে মালিক পক্ষের কোনো দৃষ্টি নেই। তারা শুধু চায় কাজ আর কাজ। যতই অসুস্থ থাকি না কেন, কাজ না করলে টাকা নেই। অথচ মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে গিয়েই কিন্তু আমরা দুর্ঘটনার শিকার হই।’

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা বাংলাদেশ অক্যুপেশনাল সেইফটি, হেলথ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট ফাউন্ডেশন (ওশি)র তথ্যমতে, দেশের বিভিন্ন জাহাজ ভাঙ্গা ইয়ার্ডে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বিভিন্ন দূর্ঘটনায় ২০১৭ সালে ১৫ শ্রমিক নিহত হয়েছেন এবং আহত হয়েছেন ২২ জনেরও বেশি শ্রমিক। ওশি ফাউন্ডেশন প্রকাশিত বার্ষিক সমীক্ষা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড-কুমিরায় অবস্থিত বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজ ভাঙা ইয়ার্ড সহ দেশের বিভিন্ন স্থানের ছোট ছোট ইয়ার্ডে প্রতিনিয়তই এসব দূর্ঘটনা ঘটছে। এসব ইয়ার্ডে হতাহতের সংখ্যাও বেশি। দুর্ঘটনার কারণ জাহাজ থেকে পড়ে যাওয়া, লোহার পাতের ধাক্কা বা নিচে চাপা পড়া, অগ্নিকান্ড, এক্সক্যাভাটরের আঘাত এবং বিষাক্ত গ্যাসে আটকা পড়া।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য অনুযায়ী, প্রায় ৯৫ শতাংশ ইয়ার্ডের মালিক তাদের শ্রমিকদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ- হেলমেট, সেইফটি জ্যাকেট, বুট ইত্যাদি সরবরাহ করেন না। অন্যদিকে যেসব ইয়ার্ডে ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ সরবরাহ করা হয় সেখানকার শ্রমিকরাও এসব ব্যবহারে উদাসীন থাকেন। দেখা গেছে, যেসব শ্রমিক পেশাগত নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রশিক্ষণ নিয়েছেন এবং নিরাপত্তা নির্দেশিকা মেনে চলছেন তারা দুর্ঘটনা থেকে মুক্ত।

ওশির প্রতিবেদনে জাহাজ ভাঙ্গা ইয়ার্ডে শ্রমিকদের হতাহতের পেছনে রাতের বেলায় কাজ করা, সেইফটি প্রশিক্ষণ ছাড়াই শ্রমিক নিযুক্ত করা, ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ প্রদানে মালিকপক্ষের অনীহা, শ্রম আইন ও বিধিমালার অপর্যাপ্ত প্রয়োগ, সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের অপর্যাপ্ত পরিদর্শন ব্যবস্থা এবং ইয়ার্ড ব্যবস্থাপনার অভাবকে দায়ী করা হয়।

জাহাজভাঙ্গা শিল্প এলাকায় কর্মপরিবেশ এবং নিরাপত্তা পরিস্থিতি উন্নয়নে ওশির পক্ষ থেকে বেশ কিছু সুপারিশও করা হয়েছে। শ্রম বিধি ২০১৫ অনুযায়ী প্রতিটি ইয়ার্ডে সেইফটি কমিটি গঠন ও তা কার্যকর করার ওপর জোর দিয়েছে ওশি ফাউন্ডেশন। তাছাড়া রাতের বেলায় কাজ করা, নিরাপত্তা প্রশিক্ষণ ছাড়া কোনো শ্রমিক নিযুক্ত করা এবং ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ পরিধান না করলে জাহাজকাটার কাজে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার সুপারিশ করা হয়।

বেশীরভাগ জাহাজের জাহাজ পুরাতন বণিক জাহাজের প্লেটস, ইঞ্জিন এবং যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে, যা ডেনমার্ক, জার্মানি এবং জানা গেছে, কেরাণীগঞ্জের ডকইয়ার্ডে তৈরি জাহাজগুলোতে ব্যবহৃত প্লেটের অধিকাংশই পুরনো। এ সব পুরনো স্টিল আসে চট্টগ্রামের ভাটিয়ারী এলাকার পুরনো ভাঙা জাহাজ থেকে। পুরনো স্টিল ব্যবহারের ফলে দেশে তৈরি এসব জাহাজ তৈরিতে খরচও হয় তুলনামূলক কম।

এই ছোট এবং মাঝারি আকারের জাহাজগুলো ইউরোপীয় বাজারের জন্য রপ্তানি করা হয়। বর্তমানে বাংলাদেশ শিপ বিল্ডিং এখন চীন, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার মতো বড় জাহাজনির্মাণ শিল্পের সঙ্গে তুলনীয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে

আরোও পড়ুন
সর্বশেষ
এক সাহসী আদিবাসীর উপাখ্যান
এক সাহসী আদিবাসীর উপাখ্যান
শিশু জয়নাবের ধর্ষক-হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকর
শিশু জয়নাবের ধর্ষক-হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকর
স্ত্রী ফিরে দেখে বাসায় অন্য নারী!
স্ত্রী ফিরে দেখে বাসায় অন্য নারী!
মনোনয়ন ঘিরে কালীগঞ্জ আওয়ামী লীগে দ্বন্ধ
মনোনয়ন ঘিরে কালীগঞ্জ আওয়ামী লীগে দ্বন্ধ
‘নারীদের প্রতি তার আসক্তি চরম’
‘নারীদের প্রতি তার আসক্তি চরম’
খুলনার সরকারি গুদামের ৯৭ কোটি টাকার গম পোকায় খাচ্ছে!
খুলনার সরকারি গুদামের ৯৭ কোটি টাকার গম পোকায় খাচ্ছে!
কিছু নেতা লাভবান হতে বেঈমানী করছে: রিজভী
কিছু নেতা লাভবান হতে বেঈমানী করছে: রিজভী
এবার মেয়েকে নিয়ে মারাত্মক কথা বললেন ঐশ্বরিয়া!
এবার মেয়েকে নিয়ে মারাত্মক কথা বললেন ঐশ্বরিয়া!
সোমালিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত ৬০
সোমালিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত ৬০
ধুনটে যমুনার ১৫০ মিটারে ধস
ধুনটে যমুনার ১৫০ মিটারে ধস
দুর্নীতির অভিযোগে তিতাসের ৫ কর্মকর্তা বরখাস্ত
দুর্নীতির অভিযোগে তিতাসের ৫ কর্মকর্তা বরখাস্ত
আত্মসমর্পণে সাড়া নেই জঙ্গিদের
আত্মসমর্পণে সাড়া নেই জঙ্গিদের
দুলাভাইয়ের কাছে শ্যালিকার আবদার!
দুলাভাইয়ের কাছে শ্যালিকার আবদার!
প্লাস্টিক খাচ্ছেন ফুটবলাররা, কিন্তু কেন?
প্লাস্টিক খাচ্ছেন ফুটবলাররা, কিন্তু কেন?
প্লুটোকে কেন এখন গ্রহ বলা হয় না?
প্লুটোকে কেন এখন গ্রহ বলা হয় না?
বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে বাংলাদেশ পিছিয়েছে
বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে বাংলাদেশ পিছিয়েছে
নরসিংদীর অন্য জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের প্রস্তুতি
নরসিংদীর অন্য জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের প্রস্তুতি
মার্কিন যুদ্ধজাহাজকে হয়রানির অভিযোগ প্রত্যাখ্যান চীনের
মার্কিন যুদ্ধজাহাজকে হয়রানির অভিযোগ প্রত্যাখ্যান চীনের
তিন ডাক্তারেই চলছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
তিন ডাক্তারেই চলছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
বিসিসিআই ‘ভণ্ডামি’ করছে
বিসিসিআই ‘ভণ্ডামি’ করছে
​অসম বয়সের সংসার কেমন তাদের?
​অসম বয়সের সংসার কেমন তাদের?
আজ মহা অষ্টমী ও কুমারী পূজা
আজ মহা অষ্টমী ও কুমারী পূজা
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক রাতে
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক রাতে
ক্রেতাদের ভরসা ঘেরের মাছ
ক্রেতাদের ভরসা ঘেরের মাছ
রাভিনার বিরুদ্ধে মামলা
রাভিনার বিরুদ্ধে মামলা
ঢাকায় বিশ্বকাপ ট্রফি
ঢাকায় বিশ্বকাপ ট্রফি
যৌন হেনস্থার অভিযোগে কোচের আত্মহত্যা
যৌন হেনস্থার অভিযোগে কোচের আত্মহত্যা
সাবিলা নয়, ভক্তরাই ঘুম হারাম করেছেন তার!
সাবিলা নয়, ভক্তরাই ঘুম হারাম করেছেন তার!
উত্তরখানে দগ্ধ আরো একজনের মৃত্যু, মৃত বেড়ে ৫
উত্তরখানে দগ্ধ আরো একজনের মৃত্যু, মৃত বেড়ে ৫
সেই চন্দ্রমোহনই দেখছেন সাকিবের আঙ্গুল!
সেই চন্দ্রমোহনই দেখছেন সাকিবের আঙ্গুল!
সর্বাধিক পঠিত
‘স্বামীকে ছেড়ে’ জোভানের সংসার করতে চান মিম!
‘স্বামীকে ছেড়ে’ জোভানের সংসার করতে চান মিম!
বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীকে স্ত্রীর সেরা উপহার!
বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীকে স্ত্রীর সেরা উপহার!
দুই স্বামীকে ‘ছেড়ে’ মন্ট্রিলে দেখা মিলল তিন্নির!
দুই স্বামীকে ‘ছেড়ে’ মন্ট্রিলে দেখা মিলল তিন্নির!
এবার যৌন হেনস্থা নিয়ে মুখ খুললেন ঐশ্বরিয়া!
এবার যৌন হেনস্থা নিয়ে মুখ খুললেন ঐশ্বরিয়া!
‘তিন ভাই’ একসঙ্গে আমাকে ধর্ষণ করেছিল’
‘তিন ভাই’ একসঙ্গে আমাকে ধর্ষণ করেছিল’
‘ওয়েব সিরিজে ভরপুর নগ্নতা’ দেখার কেউ নেই!
‘ওয়েব সিরিজে ভরপুর নগ্নতা’ দেখার কেউ নেই!
দশ বছরের বেশি মেয়েদের জিন্স পরায় নিষেধাজ্ঞা
দশ বছরের বেশি মেয়েদের জিন্স পরায় নিষেধাজ্ঞা
প্রেমিকের কবরে কনের সাজে প্রেমিকার কান্না
প্রেমিকের কবরে কনের সাজে প্রেমিকার কান্না
একী কাণ্ড এমপি মনির! (ভিডিও)
একী কাণ্ড এমপি মনির! (ভিডিও)
ফার্মগেটে যৌন হেনস্তাকারীকে কিশোরীর শায়েস্তা
ফার্মগেটে যৌন হেনস্তাকারীকে কিশোরীর শায়েস্তা
১ কোটি টাকা চেয়েছিলেন অনন্ত
১ কোটি টাকা চেয়েছিলেন অনন্ত
প্রভার ‘গর্ভে’ বেড়ে উঠছে রক্তিমের সন্তান!
প্রভার ‘গর্ভে’ বেড়ে উঠছে রক্তিমের সন্তান!
দাম শুনলে চমকে যাবেন যে কেউই!
দাম শুনলে চমকে যাবেন যে কেউই!
মিলনেই মৃত্যু, কারা ছিলো সেই ‘বিষকন্যা’?
মিলনেই মৃত্যু, কারা ছিলো সেই ‘বিষকন্যা’?
মাহি-মান্নার গোপন ফোনালাপ ফাঁস
মাহি-মান্নার গোপন ফোনালাপ ফাঁস
বলিউডের আলোচিত ৩ পরকীয়া
বলিউডের আলোচিত ৩ পরকীয়া
‘শিস কন্যা’র তালে গাইলেন প্রসেনজিৎ
‘শিস কন্যা’র তালে গাইলেন প্রসেনজিৎ
বিয়ে ভারতেই, অতিথির তালিকায় মাত্র...
বিয়ে ভারতেই, অতিথির তালিকায় মাত্র...
গজব পড়বে, ফাঁসির দণ্ড পেয়ে বাবর
গজব পড়বে, ফাঁসির দণ্ড পেয়ে বাবর
ভারতীয়দের নজরে ‘তারাই সেরা’!
ভারতীয়দের নজরে ‘তারাই সেরা’!
শিরোনাম:
জঙ্গি আস্তানা: নরসিংদীর আরেকটি বাড়িতে অভিযানের প্রস্তুতি চলছে জঙ্গি আস্তানা: নরসিংদীর আরেকটি বাড়িতে অভিযানের প্রস্তুতি চলছে বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে একধাপ পিঁছিয়েছে বাংলাদেশ: ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সূচকে একধাপ পিঁছিয়েছে বাংলাদেশ: ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম দুর্গোৎসবে মহাঅষ্টমী আজ: বিভিন্ন স্থানে কুমারী পূজার আয়োজন দুর্গোৎসবে মহাঅষ্টমী আজ: বিভিন্ন স্থানে কুমারী পূজার আয়োজন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে তিতাস গ্যাসের ৫ কর্মকর্তা বরখাস্ত অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে তিতাস গ্যাসের ৫ কর্মকর্তা বরখাস্ত আজ সৌদি বাদশাহের সাথে সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী আজ সৌদি বাদশাহের সাথে সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী নরসিংদীতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে দুটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ নরসিংদীতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে দুটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ