ঝুঁকিপূর্ণ সব ভবন ভেঙে ফেলা হবে: গণপূর্তমন্ত্রী

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২০ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৬ ১৪২৬,   ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

ঝুঁকিপূর্ণ সব ভবন ভেঙে ফেলা হবে: গণপূর্তমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৩:৪১ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৩:৪১ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, অতীতে কী হয়েছে জানি না। এখন থেকে অপরিকল্পিত কোনো ভবন নির্মিত করতে দেয়া হবে না। আর ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলো ভেঙে ফেলা হবে।

সোমবার সকালে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ভূমিকম্প বিষয়ক এক সভা শেষে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। এর আগে সকালে ভূমিকম্প বিষয়ে রাজউকের ‘আরবান রেজিলেন্স প্রকল্প’ নিয়ে পর্যালাচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পুরনো ঢাকায় বিশাল এলাকা জুড়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভবন রয়েছে, এক্ষেত্রে কোনো পদক্ষেপ নেবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমাদের কিছু পরিকল্পনা আছে। যে ইমারতগুলো বসবাস অনুপযোগী ও ঝুঁকিপূর্ণ সেগুলো চিহ্নিত করার কাজ চলছে। শনাক্ত হওয়ার পর এগুলো ভেঙে ফেলা হবে। প্রথমে এ ভবনগুলো ভাঙার জন্য মালিকদের অনুরোধ করা হবে। তারা নিজেরা না ভাঙলে সরকারের পক্ষ থেকে ভেঙে ফেলা হবে।

সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে রাজউকের ১১টি উইংয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এ পর্যালাচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ দুর্যোগপ্রবণ দেশ, দুর্যোগ আসবেই। সেই দুর্যোগ মোকাবিলা করে যেকোনও অনাকাঙিক্ষত মৃত্যু ঠেকাতে হবে। রাজউকের দুর্নীতি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, গঁৎবাধা অভিযোগ নয়, সুনির্দিষ্ট করে অভিযোগ করুন। দেখুন প্রতিকার পান কিনা।

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ ভবন অপসারণের ক্ষেত্রে আদালতে ৮ হাজার মামলা রয়েছে। এই মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আমরা আইন অমান্য করে কিছু করতে চাই না। আবার ঠুনকো বিষয়ে আইনের অজুহাতে কোনও কিছু থেমে থাকবে না। আমরা জীবনের নিরাপত্তা, নগরীর পরিবেশ ও পরিকল্পিত নগরী রক্ষার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এসব বিল্ডিং ভেঙে ফেলার জন্য মালিকদের তাগিদ দেব। তারা যদি ভাঙতে না চান, আইনগতভাবে আমরা ভেঙে ফেলার উদ্যোগ নেব।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএইচআর/এস