Alexa ঝালকাঠিতে আশ্রয়কেন্দ্রে সাত হাজার মানুষ

ঢাকা, শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯,   কার্তিক ৩০ ১৪২৬,   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

ঝালকাঠিতে আশ্রয়কেন্দ্রে সাত হাজার মানুষ

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:০৭ ৯ নভেম্বর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ঘূণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে ঝালকাঠিতে ৭৪টি আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছেন সাত হাজার ৪০ জন। শনিবার বিকেল থেকে নদী তীরের লোকজন আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়া শুরু করেন। রাতে এ সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে জেলা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ।

দুপুরে ঝালকাঠির ডিসি মো. জোহর আলী স্পিডবোট নিয়ে নদী তীরের আশ্রয়কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করেন। দুর্যোগ মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে বলেও আশ্রয় নেয়া মানুষদের আশ্বস্ত করেন ডিসি।

এদিকে বিকেলে এসপি ফাতিহা ইয়াসমিন সদর উপজেলার বিষখালী নদী তীরের ভাটারাকান্দা ও সাচিলাপুর আশ্রয়কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এখানে অসংখ্য মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। অনেকে গবাদিপশুও নিয়ে এসেছেন।

এছাড়া সদরসহ পাঁচটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। সুগন্ধা ও বিষখালীসহ অন্যান্য নদীতে পানি বেড়েছে। অভ্যন্তরীণ এবং দূরপাল্লার সব রুটে নৌযান চলালচ বন্ধ রাখা হয়েছে। দুপুর থেকে বৃষ্টি হচ্ছে। জেলায় ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দ করা ঘূর্ণিঝড় পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য ১০ লাখ টাকা ও ৩৫০ প্যাকেট শুকনো খাবার প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এসপি ফাতিহা ইয়াসমিন বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সব আশ্রয়কেন্দ্র পুলিশ পাহারা ও মাইকিং করে ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়টি জানানো হয়েছে। এখন আশ্রয়কেন্দ্রে প্রায় সাত হাজার মানুষ রয়েছেন। যারা আসতে চাচ্ছেন না, তাদেরও বুঝিয়ে আনা হয়েছে। এরইমধ্যে সবগুলো আশ্রয়কেন্দ্রে শুকনো খাবার পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর