Exim Bank
ঢাকা, বুধবার ২৫ এপ্রিল, ২০১৮
Advertisement
বিজ্ঞাপন দিন      

ঝগড়া-বিবাদ মীমাংসাকারীর পুরস্কার

 নিউজ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:২০, ১৬ এপ্রিল ২০১৮

১৮০ বার পঠিত

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

মানুষের মাঝে ঝগড়া-বিবাদ, দ্বন্দ্ব-কলহ সমাজের মারাত্মক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

ঝগড়া-বিবাদের ফলে পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রে চরম বিপর্যয় নেমে আসে।

এ কারণে মহান আল্লাহ তাআলা মানুষকে ঝগড়া-বিবাদ, দ্বন্দ্ব-কলহ থেকে বিরত থাকতে নসিহত করার পাশাপাশি মীমাংসাকারীর জন্য পুরস্কারের ঘোষণা প্রদান করেছেন।

পবিত্র কোরআন এবং হাদিসে ঝগড়া-বিবাদে জড়িত লোকদের মাঝে আপোষ-মীমাংসা বিধানে সহযোগীদের উচ্চ মর্যাদা এবং প্রদানের সুস্পষ্ট ঘোষণা প্রদান করা হয়েছে।

মহান আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘তাদের অধিকাংশ শলা-পরামর্শ ভালো নয়; কিন্তু যে শলা-পরামর্শ দান-সহযোগিতা করতে কিংবা সৎ কাজ করতে অথবা মানুষের মধ্যে সুসম্পর্ক বা সন্ধিস্থাপনে করে তা স্বতন্ত্র। আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য যে একাজ করে, আমি তাকে বিরাট প্রতিদান দেব।’ (সুরা নিসা : আয়াত ১১৪)

হাদিস পাকে প্রিয় নবী হযরত মুহম্মদ (সা.) ঝগড়া-বিবাদ মিমাংশাকারীর জন্য ঘোষণা -

হযরত আবু দারদা (রা.) বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘আমি তোমাদেরকে রোজা, নামাজ ও দান-সহযোগিতার চেয়ে উত্তম কাজের সংবাদ দেব না? তারা (সাহাবায়ে কেরাম) বললেন, ‘হ্যাঁ’, তিনি বললেন, তাহলো- মানুষের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদের মিমাংশা করা। মানুষের মাঝে ঝগড়া-বিবাদ ও বিপর্যয় সৃষ্টি করা মারাত্মক সর্বনাশা কাজ।’ (তিরমিজি, আবু দাউদ)

উল্লেখিত আয়াত এবং হাদিসের আলোকে বুঝা যায়, পরস্পরের মাঝে বিরাজমান ঝগড়া-বিবাদ মিমাংশায় রয়েছে সাওয়াব এবং পুরস্কার।

সমাজে শান্তি ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠা নিঃসন্দেহে উত্তম ও ইবাদতের কাজ।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সবাইকে সমাজের প্রতিটি পর্যায়ে পরস্পরকে সব ধরনের ঝগড়া-বিবাদ-দ্বন্দ্ব-কলহ থেকে বিরত থাকার এবং বিরত রাখার তাওফিক দান করুন।

ঝগড়া-বিবাদ ঘটলে তা সমাধানে এগিয়ে আসার এবং ঘোষিত পুরস্কার লাভের তাওফিক দান করুন। সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্র গঠনের তাওফিক দান করুন। `আমিন, আল্লাহুম্মা আমিন`।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে

সর্বাধিক পঠিত