Exim Bank Ltd.
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৪ জানুয়ারি, ২০১৯, ১১ মাঘ ১৪২৫

জয়পুরহাটে নিষিদ্ধ ইউক্যালিপটাস বিক্রি

জয়পুরহাট প্রতিনিধিডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
জয়পুরহাটে নিষিদ্ধ ইউক্যালিপটাস বিক্রি
ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

জয়পুরহাট বনবিভাগ পরিবেশের ক্ষতিকর ইউক্যালিপটাস গাছ উৎপাদন, বনায়ন বিতরণ ও বিক্রি বন্ধ করে দেয় গত ২০১৪ সালের শেষের দিকে। কিন্তু তাতে কি ইউক্যালিপটাস বৃক্ষ উৎপাদন বন্ধ নেই। বরং জেলা থেকে উপজেলা ছাড়িয়ে এখন প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে নিরবে উৎপাদন, বিক্রি ও বনায়ন করে চলেছে ইউক্যালিপটাস চারা গাছ বেসরকারি নার্সারি মালিকরা। অথচ ২০০৮ সালে সরকার পরিবেশের ক্ষতির কারণ দেখিয়ে নিষিদ্ধ করে এই গাছটি।

এ বিষয়ে জয়পুরহাট জেলার বনবিভাগ কর্মকর্তা ফরেস্ট রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. আনিছুর রহমান বলেন, ইউক্যালিপটাস চারা উৎপাদন বিক্রি ও বানায়ন করা যাবেনা এমন কোন সু-নির্দিষ্ট আইন ফরেস্ট ম্যানুয়ালে নেই। এমনকি ফরেস্ট গবেষণার উচ্চ পর্যায় থেকেও এ গবেষণামূলক কোন তথ্য দেয়া হয়নি। তবে সরকার যেহেতু নিষিদ্ধ করেছে সেক্ষেত্রে এই চারা উৎপাদন, বিক্রি ও বনায়নের ক্ষেত্রে আমরা সবাইকে নিরুৎসাহী করছি।

এ প্রসঙ্গে রাজশাহী বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. সুনীল কুমার কুন্ডু বলেন, অতিরিক্ত পানি শোষণের কারণে ইউক্যালিপটাসকে পরিবেশের বিরূপ গাছ বলা হয়। তবে দ্রুত বেশি টাকা হাতে আসে বলে এ গাছ রোপণে আগ্রহী মানুষ। জয়পুরহাটসহ উত্তরাঞ্চলের মহাসড়ক জুড়ে ইউক্যালিপটাস গাছের ব্যাপক উপস্থিতি এর প্রমাণ মেলে। উদ্ভিদবিদরা জানান, আশির দশকে দেশে এ গাছের প্রসার ঘটে।

এটি মূলত মরু অঞ্চলের গাছ। গাছটি মাটি থেকে বেশি পানি ও খাবার শোষণ করে। জয়পুরহাট সরকারি ডিগ্রী কলেজের উদ্ভিদ বিভাগের প্রভাষক তৌফিকুর রহমান সরকার বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য নষ্টের জন্য দায়ী করা হয় ইউক্যালিপটাসকে। চাহিদা দাম ও জ্বালানি হিসেবে যতই ভাল হোক না কেন সর্বোপরি মানুষ ও পরিবেশের ভারসাম্যের কথা চিন্তা করে সরকার এই বৃক্ষকে ২০০৮ সালে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। তবে বাস্তবে দেশব্যাপী ক্ষতিকর এ গাছের চারা উৎপাদন, বিপণন ও বনায়ন মূলোৎপাটন করবে এমনটাই আশাবাদী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও সচেতন মহল।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম

আরোও পড়ুন
সর্বাধিক পঠিত
নতুন হাইস্পিড রেলে ঢাকা থেকে ৫৪ মিনিটে চট্টগ্রাম
নতুন হাইস্পিড রেলে ঢাকা থেকে ৫৪ মিনিটে চট্টগ্রাম
সেলফিতে মাশরাফী দম্পতি
সেলফিতে মাশরাফী দম্পতি
বঙ্গোপসাগরে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার যন্ত্রযুক্ত কচ্ছপ উদ্ধার
বঙ্গোপসাগরে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার যন্ত্রযুক্ত কচ্ছপ উদ্ধার
‘মা’ গানে মাতালেন নোবেল, কাঁদালেন মঞ্চ (ভিডিও)
‘মা’ গানে মাতালেন নোবেল, কাঁদালেন মঞ্চ (ভিডিও)
বিয়েতে সৌদি নারীদের পছন্দের শীর্ষে বাংলাদেশি পুরুষরা!
বিয়েতে সৌদি নারীদের পছন্দের শীর্ষে বাংলাদেশি পুরুষরা!
পাসওয়ার্ড না দেয়ায় স্বামীকে পুড়িয়ে মারল স্ত্রী
পাসওয়ার্ড না দেয়ায় স্বামীকে পুড়িয়ে মারল স্ত্রী
স্ত্রীর ‘বিশেষ’ আবেদনে মলম মাখিয়ে বিপাকে স্বামী!
স্ত্রীর ‘বিশেষ’ আবেদনে মলম মাখিয়ে বিপাকে স্বামী!
সোমবার ‘চন্দ্রগ্রহণ’
সোমবার ‘চন্দ্রগ্রহণ’
স্ত্রীকে ভালোবাসার বিরল ঘটনা: ৫৫ হাজার পোশাক উপহার
স্ত্রীকে ভালোবাসার বিরল ঘটনা: ৫৫ হাজার পোশাক উপহার
মৃত মানুষের বাড়িতে কান্না করাই তাদের পেশা!
মৃত মানুষের বাড়িতে কান্না করাই তাদের পেশা!
শুধুই নারীসঙ্গ পেতে পর্যটকরা যেসব দেশে ভ্রমণ করেন
শুধুই নারীসঙ্গ পেতে পর্যটকরা যেসব দেশে ভ্রমণ করেন
পালিয়ে বিয়ে করলে আশ্রয় দেবে পুলিশ
পালিয়ে বিয়ে করলে আশ্রয় দেবে পুলিশ
বিয়ের খবর প্রকাশ করলেন সালমা
বিয়ের খবর প্রকাশ করলেন সালমা
বৃক্ষমানবের হাতে পায়ে ফের শেকড়
বৃক্ষমানবের হাতে পায়ে ফের শেকড়
ঝুলন্ত পাথরের আসল রহস্য!
ঝুলন্ত পাথরের আসল রহস্য!
পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ কাল
পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ কাল
শাহনাজের দুই মেয়ের দায়িত্ব নিচ্ছে উবার
শাহনাজের দুই মেয়ের দায়িত্ব নিচ্ছে উবার
বার্গার কিনতে লাইনে দাঁড়ালেন বিল গেটস!
বার্গার কিনতে লাইনে দাঁড়ালেন বিল গেটস!
উচ্চশিক্ষায় জনপ্রিয় বিষয়গুলো বাংলাদেশে ‘গুরুত্বহীন’
উচ্চশিক্ষায় জনপ্রিয় বিষয়গুলো বাংলাদেশে ‘গুরুত্বহীন’
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী হলেন ফরহাদ
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী হলেন ফরহাদ
শিরোনাম :
গ্যাটকো দুর্নীতি মামলা: অভিযোগ গঠনের পরবর্তী শুনানি ৭ ফেব্রুয়ারি গ্যাটকো দুর্নীতি মামলা: অভিযোগ গঠনের পরবর্তী শুনানি ৭ ফেব্রুয়ারি নিজেদের কোন্দলেই ঘর ভাঙবে বিএনপির: ওবায়দুল কাদের নিজেদের কোন্দলেই ঘর ভাঙবে বিএনপির: ওবায়দুল কাদের শিক্ষাব্যবস্থায় দুর্নীতিবিরোধী অভিযান জোরদার করা হবে: শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষাব্যবস্থায় দুর্নীতিবিরোধী অভিযান জোরদার করা হবে: শিক্ষামন্ত্রী ফ্লোরিডায় বন্দুকধারীর হামলায় নিহত ৫ ফ্লোরিডায় বন্দুকধারীর হামলায় নিহত ৫ ময়মনসিংহে নারীসহ ৪ জঙ্গি আটক ময়মনসিংহে নারীসহ ৪ জঙ্গি আটক