Alexa জুয়াড়ির সঙ্গে যে কথা হয়েছিলো সাকিবের

ঢাকা, সোমবার   ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯,   পৌষ ১ ১৪২৬,   ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১

জুয়াড়ির সঙ্গে যে কথা হয়েছিলো সাকিবের

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৫২ ২৯ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ২০:০৯ ২৯ অক্টোবর ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হলেন সাকিব আল হাসান। জুয়াড়ির কাছ থেকে প্রস্তাব পেলেও সেটা আইসিসিকে না জানানোর দায়ে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাকে। তবে আইসিসির শর্ত মেনে চললে এক বছর পরই তিনি মাঠে ফিরতে পারবেন।

আইসিসির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রেস রিলিজে জানানো হয়েছে সেই জুয়াড়ির সঙ্গে সাকিবের যোগাযোগের বিস্তারিত। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে জিম্বাবুয়ে, শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজে এবং আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ বনাম কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের একটি ম্যাচে ফিক্সিংয়ের প্রস্তার পেয়েছিলেন সাকিব।  আইপিএলের ম্যাচটি ২০১৮ সালের ২৬ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু সে প্রস্তাবের কথা আইসিসিকে জানাননি সাকিব।  এর জন্যই শাস্তির মুখে পড়লেন তিনি।

এসব অভিযোগ আইসিসির কাছে স্বীকার করেছেন সাকিব। আইসিসির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঘটনার সূত্রপাত ২০১৭ সালের নভেম্বরের শুরুতে, বিপিএল চলার সময়। সেসময় ভারতীয় জুয়াড়ি আগারওয়ালের কাছে সাকিবের ফোন নম্বর দেন তার পরিচিত একজন। সেটা সাকিব জানতেন। জুয়াড়ি আরো কয়েকজন ক্রিকেটারের নম্বরও চেয়েছিলেন।

নভেম্বরের মাঝামাঝি সাকিবের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে আলাপচারিতা শুরু করেন আগারওয়াল। সেসময় সাকিবের সঙ্গে দেখা করতে চান ভারতীয় এই জুয়াড়ি।  

২০১৮ সালের জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়েকে নিয়ে বাংলাদেশের ত্রিদেশীয় সিরিজের সময় সাকিবের হোয়াটসঅ্যাপে আবারো যোগাযোগ করেন সেই জুয়াড়ি।  সেসময় সাকিব ম্যাচসেরার পুরস্কার পাওয়ায় তাকে অভিনন্দনও জানিয়েছিলেন আগারওয়াল। সেময়ই ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন তিনি।  কিন্তু সাকিব বিষয়টি আইসিসি দুর্নীতি দমন বিভাগ আকসুকে জানায়নি।  

জানুয়ারির ২৩ তারিখ সাকিবের কাছ থেকে সিরিজের ভিতরের খবর নেয়ার চেষ্টার করেন আগারওয়াল।   সাকিব সেই বিষয়টিও আকসুকে জানায়নি।   

এপ্রিলের ২৬ তারিখে আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে মাঠে নামেন সাকিব।  সেদিনও দলের হয়ে কে কে মাঠে নামবেন সেটা জানতে চেয়ে সাকিবকে হোয়াটসঅ্যাপে মেসেজ দেন আগারওয়াল।  

সেসময় জুয়াড়ি আগারওয়াল সাকিবের সঙ্গে বিটকয়েন, ডলার অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন।  তখন সাকিব বলেছিলেন, তিনি প্রথমে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চান।   

এপ্রিলের ২৬ তারিখের বেশ কিছু মেসেজ মুছে দেন সাকিব।  কিন্তু তিনি স্বীকার করেছেন, দলের ভিতরের খবর জানার চেষ্টা করেছিলেন আগারওয়াল। সাকিব তখন নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিলেন যে আগারওয়াল একজন বাজিকর এবং ধুরন্ধর একজন ব্যক্তি। কিন্তু সেদিনের কোন অভিযোগ আকসু বা দুর্নীতি বিরোধী কোন সংস্থাকে জানাননি সাকিব।   

এসব অভিযোগের কারণে ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হলেন বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারের।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস