.ঢাকা, শুক্রবার   ২২ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৮ ১৪২৫,   ১৫ রজব ১৪৪০

‘জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচন ভুল ছিল’

নিজস্ব প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৭:৩২ ১২ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৮:৫১ ১২ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে ঐক্যফ্রন্টের একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়া ছিল ভুল সিদ্ধান্ত। 

শনিবার বিকেলে রাজধানীর মতিঝিলে গণফোরামের কার্যালয়ে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, আমি যখন ঐক্যে সম্মতি দিয়েছি তখন জামায়াতের কথা আমার জানা ছিল না। এ সময় জামায়াতের সঙ্গে রাজনীতি করার ইচ্ছা নেই বলেও জানান তিনি।

লিখিত বক্তব্যে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু বলেন, দ্রুত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করতে গিয়ে অনিচ্ছাকৃত যেসব ভুল-ক্রটি হয়েছে তা সংশোধন করে ভবিষ্যতের জন্য সুদৃঢ় জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা হবে।

অনিচ্ছাকৃত ভুলত্রুটি বলতে কী বোঝানো হয়েছে এবং সেটা দ্বারা জামায়াতের সঙ্গে ঐক্যকেও বুঝানো হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে ড. কামাল বলেন, একটা ভালো উদাহরণ আপনি দিয়েছেন। এটাকেও আমি মনে করবো, ইয়েস।

‘আমি অলরেডি পাবলিকলি বলেছি, যে ভাই এটা তো আমার জানাই ছিল না। জামায়াতের ২৫ জনকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। আমি যখন সম্মতি দিয়েছি তখন এটা আমাকে জনানো হয়নি। অন্তত আমার মতে সেটা (জামায়াতের সঙ্গে নির্বাচনে যাওয়া) একটা ভুল।

জামায়াতের ব্যাপারে অবস্থান জানতে চাইলে মোস্তফা মহসিন মন্টু বলেন, জামায়াতকে নিয়ে আমাদের রাজনীতি করার কোন ইচ্ছা নেই। আমরা আগেও করিনি, এখনো করছি না এবং ভবিষ্যতেও করবো না।

জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন অনিচ্ছাকৃত ভুলক্রটি কিনা এবং জামায়াত ছেড়ে ঐক্যফ্রন্টে আসতে বিএনপিকে চাপ দেয়া হবে কিনা সে প্রসঙ্গে ড. কামাল হোসেন বলেন, আমি তো মনে করি, জামায়াতকে ছেড়ে আসতে বিএনপিকে চাপ দেয়া হতে পারে।

বিএনপির সঙ্গে জামায়াত থাকলে ভবিষ্যতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে আপনারা থাকবেন কিনা এ প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি পরিষ্কার ভাষায় বলতে চাই, জামায়াতকে নিয়ে কোনো রাজনীতি করবো না আমরা। অবিলম্বে জামায়াতে বিষয়ে বিএনপির কাছ থেকে আমরা সুরাহা চাই।

জাতীয় নির্বাচনকে উদ্ধৃত করে তিনি বলেন, দেশের মানুষের মধ্যে মৌলিক বিষয়ে কিন্তু ঐক্যমত্য আসেনি। একটা সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের সংসদ গঠিত হোক, এটা নিয়ে কোনো দ্বিমত নেই। কিন্তু ৩০ তারিখে যা ঘটেছে সেটা তো আপনারা পত্র-পত্রিকায় পাচ্ছেন।

দেশের স্বার্থে সংবিধানের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে সরকার সিদ্ধান্ত নিতে চাইলে সেটা পারে বলে দাবি করে ড. কামাল বলেন, ‘তারা চাইলে দুই তিন মাস বা তার চেয়ে বেশি সময় নিয়ে একটা নির্বাচন করা যেতে পারে।’

এছাড়া আগামী ২৩ এবং ২৪ মার্চ ঢাকায় গণফোরামের জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান ড. কামাল হোসেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে/জেডআর