Alexa জামাত-খালেদা মাইনাস হবে: ১৪ দল

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৭ ১৪২৬,   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

জামাত-খালেদা মাইনাস হবে: ১৪ দল

 প্রকাশিত: ১৭:৩২ ২৮ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ১৭:৩২ ২৮ আগস্ট ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই অনুষ্ঠিত হবে। সাংবিধানিকভাবে ডিসেম্বরে নির্বাচন হবে। এখানে দেন-দরবার বা মীমাংসার কিছু নেই। এ নির্বাচনে রাজাকার ও যুদ্ধাপরাধীর দল জামায়াত, জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার মাতা খালেদা জিয়া মাইনাস হয়ে যাবেন। যারা সবার অংশগ্রহণের নির্বাচন চায় তারা মূলত রাজাকার জামায়াত ও দণ্ডিত খালেদা জিয়ার পুনর্বাসন চায়। 

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধীতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ১৪ দলের নেতারা এসব কথা বলেন।

১৪ দলের সমন্বয়ক ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এসময় বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হবে। ইউরোপ, আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশে নির্বাচিত সরকারের অধীনেই পরবর্তী নির্বাচন হয়। আমাদের দেশে একই পদ্ধতিতে নির্বাচন হবে। আর এ নির্বাচনে বিএনপিসহ সব দলই অংশ গ্রহণ করবে।
  
তিনি আরো বলেন, নির্বাচনে সব দলই অংশ নেবে। তবে বিএনপি অংশ নেবে কি না এটা তাদের একান্ত ব্যক্তিগত। গত নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিয়ে যে ভুল করেছিল, এবার তারা সে ভুল করবে না। 

১৪ দলের শরীক জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ৭১-এর মুক্তিযুদ্ধে আমরা যাদের মাইনাস করেছিলাম, ৭৫-এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর রাজাকার, জঙ্গি ও সাম্প্রদায়িক চক্রকে প্লাস করা হয়েছিলো।
 
তিনি আরো বলেন, আগামী নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এরমধ্য দিয়েই রাজাকার, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা চিরতরে বিদায় নেবে। দেশ আরো এগিয়ে যাবে। তাহলেই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে দেশ এগিয়ে যাবে।

জাসদের সভাপতি আরো বলেন, নির্বাচনে কে এলো আর কে এলো না এটা কোনো বিষয় না।

এর আগে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সাবেক মন্ত্রী ও সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দীলিপ বড়ুয়াসহ ১৪ দলের নেতাদের সঙ্গে নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বঙ্গবন্ধুর সমাধী সৌধের বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন। পরে মন্ত্রীরা আলাদা আলাদা ভাবে বঙ্গবন্ধুর সমাধীতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরীফ নরুল আম্বিয়া, কমিউনিস্ট কেন্দ্র-এর যুগ্ম আহ্বায়ক ডা. অসিত বরণ রায়, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদত হোসেন, গণ আজাদী লীগ সভাপতি এস কে সিকদার, জাতীয় পার্টি (জেপি) এজাজ আহম্মেদ মুক্তা, ন্যাপ এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেনসহ ১৪ দলের কেন্দ্রীয় নেতারা। এছাড়াও গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, জেলা জাসদের সভাপতি শেখ মাসুদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আসাব চৌধুরী, বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি বদর খান ঠাকুর, সাধারণ সম্পাদক শেখ মহব্বত-ই-আনোয়ার, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোখলেসুর রহমান সরকার, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আসলাম খান, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী গোলাম মোস্তফা, পৌর মেয়র শেখ আহম্মেদ হোসেন মির্জা, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ আব্দুর হালিম, সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার, জেলা যুব লীগের সভাপতি জি এম সাহাবুদ্দিন আজম, সাধারণ সম্পাদক এমবি সাইফসহ জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতারা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে/আজ