জাবরির ছেলে-মেয়েকে হত্যা করেছেন যুবরাজ সালমান!

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১৫ ১৪২৭,   ১২ সফর ১৪৪২

জাবরির ছেলে-মেয়েকে হত্যা করেছেন যুবরাজ সালমান!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০২:৩৬ ১৩ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ০৭:৪৪ ১৩ আগস্ট ২০২০

ওমর ও সারাহ। ছবি: সংগৃহীত

ওমর ও সারাহ। ছবি: সংগৃহীত

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের বিরুদ্ধে দেশটির সাবেক গোয়েন্দা প্রধান ও নিরাপত্তা উপদেষ্টা ড. সাদ আল-জাবরির ছেলে-মেয়েকে হত্যা অথবা কারাবন্দি করার অভিযোগ উঠেছে। খবর-পার্সট্যুডে।

সাদ আল-জাবরির বড় ছেলে খালিদ অভিযোগ করেন, তার বাবাকে সৌদি আরব ফিরিয়ে নিয়ে শাস্তি দিতেই দুই ভাই-বোনকে জিম্মি করেছে সালমানের প্রশাসন। তাদের মেরে ফেলা হয়েছে নাকি কারাবন্দি করে রাখা হয়েছে, সে সম্পর্কে কোনো তথ্যই তারা জানেন না।

তিনি বলেন, গত ১৬ মার্চ ভোরে ওমর ও সারাহকে ২০টি গাড়িতে করে আসা ৫০ জনের মতো নিরাপত্তাকর্মী তুলে নিয়ে যায়। আমাদের রিয়াদের বাড়িতে অনুসন্ধান চালানো হয়েছে। সিসিটিভির মেমোরি কার্ড সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

খালিদ বর্তমানে তার বাবার সঙ্গে কানাডায় রয়েছেন। তার মতে, তার বাবাকে দেশে ফেরাতে দরকষাকষির গুটি হিসেবেই দুই ভাই-বোনকে আটক করেছে সৌদি প্রশাসন। সৌদি আরব ফেরার পরপরই ড. সাদকে হত্যা করা হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তার স্বজনরা।

ড. জাবরি সৌদি আরবের সাবেক যুবরাজ নায়েফের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সম্প্রতি তিনি আমেরিকার একটি আদালতকে জানিয়েছেন, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান তাকে হত্যার জন্য কানাডায় ঘাতক দল পাঠিয়েছিলেন, কিন্তু তারা বিমানবন্দরে ধরা পড়ায় বেঁচে যান তিনি।

সৌদি রাজা আবদুল্লাহর মৃত্যুর পরে ২০১৫ সালে তার সৎ ভাই সালমান সিংহাসনে বসার পর থেকেই ড. সাদের ক্ষমতা কমে আসে। সালমান ২০১৭ সালে তার ছেলে মোহাম্মদ বিন সালমানকে ক্রাউন প্রিন্স বানিয়ে নায়েফকে সরিয়ে দেন। ওই বছরই সাদ দেশ ছাড়েন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর