জরাজীর্ণ ভবনে ঝুঁকি নিয়ে পড়াশোনা 

ঢাকা, বুধবার   ২২ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ৮ ১৪২৬,   ১৬ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

জরাজীর্ণ ভবনে ঝুঁকি নিয়ে পড়াশোনা 

শাহাজাদা এমরান, কুমিল্লা ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৫৫ ১৪ মার্চ ২০১৯   আপডেট: ২০:০০ ১৪ মার্চ ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার একবালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে ঝুঁকি নিয়ে চলছে পড়াশোনা। দুই বছর আগে বিদ্যালয়ের ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হলেও ভবনের সংস্কার কিংবা নতুন ভবন নির্মাণের নেই কোনো উদ্যোগ।

বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টি হলেই ছাদ চুইয়ে পানি পড়ে ক্লাস রুমে। দরজা, জানালা ভাঙা, স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশ, দেয়াল-ছাদের আস্তর খসে পড়ছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের শরীরে। বিকল্প ভবন না থাকায় ওই জরাজীর্ণ ভবনেই বাধ্য হয়ে চালিয়ে যেতে হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম।

১৯৯৪ সালে নির্মিত একবালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এ ভবন ২৩ বছরেই জরাজীর্ণ হয়ে পড়ে। ২০১৭ সালে শিক্ষা বিভাগের প্রকৌশলীরা ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ বলে ঘোষণা করেন। ভবনটি যেকোনো সময় ধসে পড়ে মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটাতে পারে বলে আশঙ্কা করছে শিক্ষার্থীরা ও অভিভাবকরা।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইসমাইল হোসেন জানান, বিদ্যালয়টি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। ভয়ে ভয়ে ক্লাস করতে হয়। স্কুলে ২১০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। শ্রেণীকক্ষের পাশাপাশি শিক্ষকদের কক্ষটিও বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। নতুন ভবন নির্মাণের জন্য পাঁচ মাস আগে ৭৮ লাখ টাকা বরাদ্দ এলেও কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনোয়ার হোসেন জানান, একবালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঝুকিপূর্ণ ভবনের জায়গায় নতুন ভবন নির্মাণের জন্য বরাদ্দ এসেছে। সংশ্লিষ্ট উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। দ্রুত ভবন নির্মাণকাজ শুরু হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর

Best Electronics