Alexa জমি নিয়ে বিরোধ, ডোবায় মিললো যুবলীগ নেতার লাশ

ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ২ ১৪২৬,   ১৭ সফর ১৪৪১

Akash

জমি নিয়ে বিরোধ, ডোবায় মিললো যুবলীগ নেতার লাশ

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:১২ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এক যুবলীগ নেতাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় সোমবার সকালে বরগুনার বামনা উপজেলায় ইউপি পর্যায়ের এক যুবলীগ নেতার লাশ ডোবা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

নিহত রিপন হাওলাদার বামনা উপজেলার সোনাখালী গ্রামের রশিদ হাওলাদারের ছেলে এবং সদর ইউপির ৬ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

বামনা থানার ওসি মো. মাসুদুজ্জামান জানান, রিপনের মা রিজিয়া বেগমের থেকে খবর পেয়ে তার বাড়ির একশ গজ দূরে একটি বাগানের ডোবা থেকে সোমবার সকাল ৭টার দিকে রিপনের লাশ উদ্ধার করা হয়।

রিজিয়া জানান, তার ছেলে অটোরিকশা চালক ছিলেন। রোববার রাত ১২টার দিকে বাড়ির সামনে সড়কের পাশে তার অটোরিকশার ব্যাটারি চার্জ দিতে আসেন। কিন্তু ওই সময় তিনি আর বাড়িতে যাননি।   

সোমবার সকালে একটি ভাড়া নিয়ে রিপনের ফুলঝুড়ি খেয়াঘাটে যাওয়ার কথা ছিল। সকালে ওই যাত্রীরা রিপনের মোবাইলে কল করে না পেয়ে তার বাবার মোবাইলে কল দেন।

পরে রিপনের ঘরে গিয়ে তাকে না পেয়ে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। একপর্যায়ে বাড়ির পেছনে একটি বাগানের ডোবার মধ্যে ছেলের জুতা ভাসতে দেখি। পরে ডোবায় রিপনের তার লাশ ভেসে উঠে।

রিজিয়ার অভিযোগ, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে তার ছেলেকে প্রতিপক্ষের লোকজন পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে বাড়ির পিছনে ডোবায় ফেলে দেন।

রিপনের ছোট ভাই সেলিম হাওলাদার বলেন, তার চাচা চাঁন মিয়া হাওলাদার, সহিদ হাওলাদার ও সৎ ভাই ইলিয়াস হাওলাদারের সঙ্গে তাদের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। এ ঘটনায় ইলিয়াস ও চাচাদের আসামি করে আগে একটি মামলাও হয়েছিল। সেই মামলায় ইলিয়াস কয়েকদিন আগে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়ে বরগুনা জেলা কারাগারে ছিলেন। পরে গত রোববার তিনি জামিনে মুক্তি পেয়ে তাদেরকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে আসছিলেন।

ওসি মাসুদুজ্জামান আরো জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় বামনা থানায় মামলা হয়েছে তবে এখনো কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম