Alexa ছেলের বিজয়ে খুশি নুরের বাবা

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ২ ১৪২৬,   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪০

ছেলের বিজয়ে খুশি নুরের বাবা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩৭ ১২ মার্চ ২০১৯   আপডেট: ২০:৪০ ১২ মার্চ ২০১৯

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নূর পটুয়াখালীর সন্তান। দীর্ঘ ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচনে নূরের বিজয়ে নিজ উপজেলা গলাচিপায় সাধারণ মানুষের মধ্যে আনন্দের জোয়ার বইছে। চলছে মিষ্টি বিতরণ। 

ছেলের এমন বিজয়ে গর্বিত কৃষক পিতা ইদ্রিস হাওলাদার। প্রতিক্রিয়ায় নূরের বাবা বলেন, ছেলের বিজয়ে এলাকার সবস্তরের মানুষ খুশি। এ বিজয় আপনাদের সবার। আমার ছেলে ভবিষ্যতে যাতে বড় কিছু হতে পারে, সে জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার চরবিশ্বাস ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর চরবিশ্বাস গ্রামের ইদ্রিস হাওলাদারের ছেলে নূর ৫ বোন ও ৩ ভাইয়ের মধ্যে মেঝো। মাত্র ৬ বছর বয়সে মা হারান নুর। 

নুরুলের বড় ভাই নুরুজ্জামান ও ছোট ভাই আমিনুল উত্তরায় মুদি মনোহরী ও গেঞ্জি বিক্রির ব্যবসা করেন। তার ৫ বোনের মধ্যে তিন বোন বিবাহিত। বাকি দুই বোন মধ্যে সীমা আক্তার দশমিনা কলেজ থেকে ২০১৯ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেবে এবং ইতি আক্তার চর বিশ্বাস জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয় হতে ২০১৯ সালে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন।

নুরু চর বিশ্বাস জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে থেকে সপ্তম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করে ঢাকায় চলে আসেন। নুরুল ২০১০ সালে গাজীপুর জেলা কালিয়াকৈর গোলাম নবী মাধ্যমিক বিদ্যালয় এর বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ‌‘এ’ গ্রেড (৪.৯২ পয়েন্ট) এসএসসি পাস করেন। ২০১২ সালে ঢাকা উত্তরা মডেল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় একই ফলাফল অর্জন করেন। 

এরপর ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষে ইংরেজি বিভাগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির সুযোগ পান নুর। তবে মাঝখানে নুর পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ব বিদ্যালয়েরও ভর্তি হয়েছিলেন।

নুরুর বাবা ইদ্রিস হাওলাদার বর্তমানে কৃষি কাজের পাশাপাশি চর বিশ্বাস বুধবারের বাজারে একটি চায়ের দোকান করে সংসার চালাচ্ছেন। ১৯৯১ সালে নুরুর বাবা চরবিশ্বাসের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার নির্বাচিত হন।

নুরের বাবা এক সময় বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকলেও গত ১০ বছর ধরে তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে নেই বলে জানান এলাকাবাসী। তবে তিনি বর্তমানে আওয়ামী লীগের একজন সমর্থক বলে জানান স্থানীয়রা।

এদিকে নুরের বিরুদ্ধে জামায়াত শিবিরের সঙ্গে সম্পৃক্ততার কথা বলা হলেও নিজ এলাকায় নুর ছাত্রলীগ নেতা হিসেবেই পরিচিত। তিনি কিংবা তার পরিবারের কোনো সদস্য জামায়াত শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত এমন কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

এলাকায় নুর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা হিসেবেই পরিচিত। নুর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুহসিন হল শাখা ছাত্রলীগের মানবসম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন বলে জানান নুরুর বাবা ইদ্রিস হাওলাদার।

এদিকে নুর গত তিন বছর আগে নিজ গ্রামের মরিয়ম আক্তারকে বিয়ে করেন। নুরের শ্বশুর হাতেম আলী চর বিশ্বাস ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। মরিয়ম স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

ডাকসু নির্বাচনে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নুরুল-রাশেদ-ফারুক প্যানেলে ভিপি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ছাত্রলীগ সভাপতি ও ভিপি প্রার্থী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে পরাজিত করেন। 

নুরুল মূলত কোটা সংস্কার আন্দোলনের অন্যতম নেতা হিসেবে বিশেষ পরিচিতি লাভ করেন। ডাকসু নির্বাচনে ভিপি পদে ১১ হাজার ৬২ ভোট পেয়ে তিনি নির্বাচিত হন। 

নুর ডাকসু ভিপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই সারাদেশের মতো নুরের নিজ জেলা পটুয়াখালীতেও চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এলকে