Alexa চুরি-ডাকাতি ঠেকাতে রাতভর পাহারা

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯,   আশ্বিন ৩০ ১৪২৬,   ১৫ সফর ১৪৪১

Akash

চুরি-ডাকাতি ঠেকাতে রাতভর পাহারা

কাজী মফিকুল ইসলাম, আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৩৯ ১১ মার্চ ২০১৯   আপডেট: ১৯:১৫ ১১ মার্চ ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার দুর্গাপুর ও উত্তর ইউপির কয়েকটি গ্রামের বাড়িতে ডাকাতি হয়েছে। এতে আতঙ্কে রাত কাটান স্থানীয়রা। তাই চুরি-ডাকাতি ঠেকাতে দলে দলে বিভক্ত হয়ে পাহারা দিচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবীরা।

রাত ১১ টা হলেই স্বেচ্ছাসেবীরা জড়ো হন। সঙ্গে লাঠি, বাঁশি, লাইট নিয়ে ক্ষুদ্র দলে বিভক্ত হয়ে ছড়িয়ে পড়েন। অপরিচিত কাউকে দেখলেই ঘিরে ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। লিখে রাখা হয় পরিচয়। অবস্থা বেগতিক দেখলে বাঁশি বাজান তারা।

উত্তর ইউপির আজমপুর, চানপুর, আমোদাবাদ, রামধননগর ও পৌর শহরের দুর্গাপুরে সম্মিলিত চেষ্টায় চুরি-ডাকাতি রোধে ছাত্র, যুবক, ব্যবসায়ী, শ্রমিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোক পাহারা দিতে দেখা যায়।  প্রতিটি দলে ১০-১২জন সদস্য রয়েছে। রাত ১১টা থেকে ভোর ৪টা পযর্ন্ত পাহারার কাজ চলে।

দুর্গাপুর গ্রামের সোহাগ মিয়া বলেন, মানুষের জানমাল রক্ষার্থে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছি।  এমন সেবা করে ভাল লাগছে।  

চানপুর গ্রামের প্রবাসীর স্ত্রী শামীমা আক্তার বলেন, চুরি-ডাকাতি বাড়ার পর রাতে ঘুম হতো না। সন্ধ্যা হলেই আতঙ্কে থাকতাম। গ্রামের লোক রাত জেগে পাহারা দেয়ায় আতঙ্ক নেই।

আখাউড়া উত্তর ইউপির চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান ভূইয়া স্বপন বলেন,  চুরি-ডাকাতি রোধে ইউপি সদস্য, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা, গ্রামের লোকদের নিয়ে বৈঠক করেছি। রাত জেগে পাহারা দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। স্থানীয় প্রশাসনকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে। প্রশাসনও তৎপর রয়েছে।

পৌর কাউন্সিলর মো. তাজুল ইসলাম বলেন, চুরি-ডাকাতি বেড়ে যাওয়ায় স্থানীয়রা বৈঠক করে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আখাউড়া থানার ওসি মো. রসুল আহমদ নিজামী ডেইলি বাংলাদে ‘কে বলেন,  জনগণের সহযোগিতা ছাড়া চুরি-ডাকাতি রোধ করা সম্ভব নয়। মূল হোতাদের আটকের চেষ্টা চলছে।  যেকোন মূল্যে চুরি-ডাকাতিসহ অপরাধ নির্মূল করা হবে।

এক সপ্তাহ আগে পৌর এলাকার দুর্গাপুর মো. নূর মিয়ার বাড়ি ও একদিন আগে উত্তর ইউপির চানপুর গ্রামে জলিল মিয়ার বাড়িতে ডাকাতি হয়। ডাকাতরা কলাপসিবল গেইটের তালা ও ঘরের দরজা ভেঙে অস্ত্রের মুখে টাকা, স্বর্ণালঙ্কার মোবাইলসহ অন্তত ১৪ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ