চীনা পণ্যে অর্থনৈতিক অবরোধ ট্রাম্পের

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৭ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ২৩ ১৪২৭,   ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

চীনা পণ্যে অর্থনৈতিক অবরোধ ট্রাম্পের

 প্রকাশিত: ২১:০২ ২২ মার্চ ২০১৮   আপডেট: ০২:৪০ ২৩ মার্চ ২০১৮

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের উৎপাদিত পণ্যের ইন্টেলেকচ্যুয়াল প্রপার্টি বা মেধাস্বত্ত্ব চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান চুরি করছে বলে অভিযোগ করেছে দেশটি।

এ জন্য চীন থেকে আমদানি করা পণ্যের ওপর নতুন শুল্ক ও অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন।

হোয়াইট হাউজের কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি এ খবর দিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, কয়েক বছর ধরে এ সম্পর্কিত আলোচনা ব্যর্থ হওয়ায় বৃহস্পতিবার ট্রাম্প প্রশাসন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র চীনের বিরুদ্ধে এ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করলে বাণিজ্য যুদ্ধ প্রকট আকার ধারণ করবে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশ্লেষকরা।

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন গণমাধ্যম জানিয়েছে, হোয়াইট হাউজ তিন হাজার কোটি থেকে ছয় হাজার কোটি ডলার সমমানের নতুন শুল্ক আরোপ করতে পারে। একই সঙ্গে বিনিয়োগের ওপর বিভিন্ন বিধিনিষেধও আরোপ করবে।

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র এ বিষয়ে ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশনেও অভিযোগ জানাবে।

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য প্রতিনিধি রবার্ট লাইটহাইজার বলেন, যুক্তরাষ্ট্র চীনের ওপর সর্বোচ্চ এবং যুক্তরাষ্ট্রের ক্রেতাদের ওপর সর্বনিম্ন চাপ প্রয়োগ করতে চাইছে।

তিনি বলেন, মেধাস্বত্ত্ব সম্পত্তির সুরক্ষা যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বাণিজ্য ভারসাম্য পুনঃপ্রতিষ্ঠায় যেসব পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তার মধ্যে এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

নতুন অবরোধের ফলে বস্ত্র রফতানি ও যুক্তরাষ্ট্রে চীনা বিনিয়োগ সীমাবদ্ধ হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আগে চীন যুক্তরাষ্ট্রকে ‘আবেগের বশে’ কাজ না করার আহ্বান জানিয়েছিল। নতুন শুল্ক আরোপ করলে চীনও যুক্তরাষ্ট্রের কৃষিপণ্যের ক্ষেত্রে একই রকম পদক্ষেপ নিতে পারে।

ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশনের নিয়ম ‘বারবার ভঙ্গ’ করেছে বলে চীন অভিযোগ জানিয়েছে।

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে ৫৭৯ বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য হয়। চীন যুক্তরাষ্ট্রে ৪৬২.৮ বিলিয়ন ডলার মূল্যের পণ্য রফতানি করে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র চীনে ১১৫.৮ বিলিয়ন ডলার মূল্যের পণ্য রফতানি করে।

যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া একমাত্র ২৮ সদস্যের ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সঙ্গে চীন সবচেয়ে বেশি পরিমাণ বাণিজ্য করে থাকে।

চীনের বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপ নেয়ার আগেই ট্রাম্প প্রশাসন ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের বিভিন্ন পণ্যের ওপর নতুন শুল্ক আরোপের ঘোষণা দেয়, যেটিকে বিশ্বে বাণিজ্যযুদ্ধ বলে অভিহিত করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/সালি