চা দিতে দেরি, শিশুর শরীরে গরম দুধ ঢেলে দিল মালিক

ঢাকা, শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২১ ১৪২৬,   ১০ শা'বান ১৪৪১

Akash

চা দিতে দেরি, শিশুর শরীরে গরম দুধ ঢেলে দিল মালিক

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:১২ ২১ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৯:১৬ ২১ মার্চ ২০২০

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় চায়ের দোকানে কর্মরত শিশু শ্রমিকের শরীরে গরম দুধ ঢেলে দিয়ে শরীর ঝলসে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ওই চা দোকানের মালিকের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় আটক হয়েছে চায়ের দোকান মালিক আতিক মিয়া। তাকে শনিবার পুলিশ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

অভিযুক্ত আতিক মিয়া রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঁঙ্গা ইউপির পশ্চিম দেবত্তর গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে। 

রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঁঙ্গা ইউপির কাশিম বাজারের চায়ের দোকানি আতিক মিয়ার দোকানে অভাবের তাড়নায় কাজ করত পার্শ্ববর্তী মুসরত নাখেন্দা গ্রামের হতদরিদ্র ফুল বাবুর তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া মাদরাসাছাত্র নুরনবী মিয়া। 
শুক্রবার দুপুরে ওই দোকানের মালিক আতিক মিয়া নুরনবীকে দ্রুত চা তৈরি করে দিতে বলেন। চা তৈরি করতে দেরি করায়রি দোকানের মালিক রেগে গিয়ে নুরুন্নবীর শরীরে গরম দুধ ঢেলে দেন। এতে গরম দুধ শরীরে ছিটকে পড়লে শিশু নুরন্নবীর ঘাড়, পিঠ ও নিম্নাংশ ঝলসে যায়। খবর পেয়ে শিশুর অভিভাবকরা ঘটনাস্থলে এসে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ঘটনাটি এলাকাবাসী রাজারহাট থানা পুলিশকে অবগত করলে পুলিশ এসে চায়ের দোকান মালিক আতিক মিয়াকে আটক করেন।

এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে নুরনবীর বাবা ফুলবাবু বিয়া বাদী হয়ে আতিক মিয়ার বিরুদ্ধে রাজারহাট থানায় একটি মামলা করেন।

রাজারহাট থানার ওসি কৃষ্ণ কুমার সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ