চারশ জনের বকেয়া, ৬০ হাজারের ভোগান্তি

ঢাকা, রোববার   ০৫ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ২১ ১৪২৭,   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

চারশ জনের বকেয়া, ৬০ হাজারের ভোগান্তি

শরীফুল ইসলাম, চাঁদপুর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২৪ ১১ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ২২:০৬ ১১ জুলাই ২০১৯

চাঁদপুর পিডিবি অফিস

চাঁদপুর পিডিবি অফিস

চাঁদপুরে চার শতাধিক গ্রাহকের কাছে ৩০ কোটি টাকার বেশি বিদ্যুৎ বিল বকেয়া পড়ে আছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের। দীর্ঘদিনের চেষ্টায়ও বিল আদায় করা যাচ্ছে না। আবার, সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতেও পারছে না কর্তৃপক্ষ।

গ্রাহকরা বলেন, প্রভাবশালী এসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বকেয়া বিলের ভার আমাদের নিতে হয়। আমরা প্রতি মাসে যতটুকু বিদ্যুৎ ব্যবহার করি, বিল আসে তার দ্বিগুণ-তিনগুণ। এসব ভুতুড়ে বিলের কারণে আমাদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়। এমনকি প্রিপেইড মিটারেও হঠাৎ করে বকেয়া বিল দেখিয়ে সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

চাঁদপুর পিডিবি’র নির্বাহী প্রকৌশলী (বিক্রয় ও বিতরণ) এস.এম ইকবাল বলেন,  আমাদের ৬০ হাজার পাঁচশ গ্রাহক রয়েছে। এরমধ্যে চার শতাধিক গ্রাহক বারবার নোটিশ দেয়া সত্ত্বেও বিল পরিশোধে আগ্রহ দেখাচ্ছে না। এসব গ্রাহকের ৮০ ভাগই বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান।

এস.এম ইকবাল বলেন, এ বছরের মে পর্যন্ত বকেয়ার পরিমাণ ২৯ কোটি ৪৭ লাখ ৭৩ হাজার ৪৫১ টাকা। এরমধ্যে চাঁদপুর পৌরসভার ২১ কোটি ৯২ লাখ ৭৬ হাজার ২৫২ টাকা, চাঁদপুর সরকারি কলেজের চারটি হোস্টেলের ৪৮ লাখ টাকা, পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩৩ লাখ ৪৫ হাজার ৮৮৮ টাকা, জেলা পুলিশের ১৭ লাখ টাকা, বিভিন্ন সরকারি কোয়ার্টারের আট লাখ ৪২ হাজার ৪৭৩ টাকা, জেলা পরিষদের তিন লাখ টাকা, রেজিস্ট্রার অফিসের এক লাখ ১৯ হাজার টাকা, সাহিত্য একাডেমির এক লাখ ৩৯ হাজার টাকা, জেলা সঞ্চয় অফিসের এক লাখ টাকা।

নির্বাহী প্রকৌশলী এস.এম ইকবাল বলেন, এসব প্রতিষ্ঠানের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করলে সমস্যায় পড়তে হয়। এরপরও আমরা চিঠির মাধ্যমে তাদের তাগাদা দিচ্ছি। তবুও কাজ না হলে আমরা মামলাও করতে পারি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর