Alexa চামড়ায় বিপর্যয়, পাচারের শঙ্কা

ঢাকা, রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৭ ১৪২৬,   ২২ মুহররম ১৪৪১

Akash

চামড়ায় বিপর্যয়, পাচারের শঙ্কা

 প্রকাশিত: ১৯:২৯ ২৯ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ১৯:২৯ ২৯ আগস্ট ২০১৮

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

রংপুর বিভাগের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ভারতে চামড়া পাচার হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ ট্যানারী মালিক ও অসাধু চামড়া ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দাম নিয়ন্ত্রণ করায় বেশি দামের আশায় তারা চোকারবারীদের কাছে চামড়া তুলে দিচ্ছে।

রংপুররের চামড়া আড়তদারেরা জানান, গত বছর যে পরিমানে তারা চামড়া সংগ্রহ করেছিল কিন্ত এবার কম দামেও সে পরিমান চামড়া সংগ্রহ করতে পারে নাই। তারা জানান, সীমান্ত এলাকার চামড়া ব্যবসায়ীরা বেশি দাম দিয়ে চামড়া চোড়াকারবারীদের হাতে তুলে দিয়েছেন। সরকার এবারে চামড়ার দাম প্রতিবর্গ ফুটে ১০ থেকে ১৫ টাকা কমিয়েছে। এই দামে এবারে বাজারে চামড়া পাওয়া যায়নি।

মওসুমী চামড়া ব্যবসায়ী আবুল কাশেম জানান, এবারে চামড়ার দাম এত কমেছে যে, লাখ টাকার অধিক মূল্যের একটি গরুর চামড়া মাত্র ১ হাজার ২শ টাকায় বিক্রি হয়েছে। অথচ এই চামড়া ভারতের বাজারে বিক্রি হচ্ছে আমাদের দেশের টাকায় সাড়ে তিন থেকে সাড়ে চার হাজার টাকায়। মাঝারী মানের একটি গরুর চামড়া আমাদের দেশে মাত্র ৪শ’ টাকায় বিক্রি  হয়েছে। আর ভারতের বাজারে দুই থেকে আড়াই হাজার টাকায়।

মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করে বলেন, এখনও সময় আছে সরকার যদি দাম নিয়ন্ত্রন করতে পারে তাহলে প্রকৃত ব্যবসায়ীরা লাভের দামের মুখ দেখবে। চামড়ার নির্ধারিত বাজার এবং আড়তে দাম কম হওয়ায় প্রত্যন্ত পল্লী এলাকার অনেক মওসূমী চামড়া ব্যবসায়ী এবারে এসব বাজার আড়তে না এমে চোরাকারবারীদের হাতে তুলে দিয়েছেন।

তবে রংপুর ডেপুটি পুলিশ কমিশনার দেবদাস ভট্টাচার্য ব্যবসায়ীদের অভিযোগ আমলে না নিয়ে বলেছেন, একটিও চামড়া আমারা সীমান্ত অভিমুখে হতে দেয়নি। আমাদের পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা সজাগ আছেন। ব্যবসায়ীরা কোন আশংকায় বলেছেন তা আমার জানা নেই।

চামড়া ব্যবসায়ীরা জানান, প্রতি বছর কোরবানির সময় রংপুর বিভাগের প্রতিটি জেলায় দুই থেকে আড়াই লাখ পিস চামড়া আমদানি হয়ে থাকে। এবার সেই লক্ষ্য পূরণ হয়নি। রংপুরে অন্তত ৫০ জন ব্যবসায়ীর ৭ কোটির বেশি টাকা ঢাকার বিভিন্ন ট্যানারি মালিকদের নিকট পাওনা রয়েছে। এ টাকা তারা গত এক বছর ধরে ধর্ণা দিয়েও আদায় করতে পারেননি।

রংপুর জেলা চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুল লতিফ খান ও সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী জানান, রংপুরের বাজারে এবারে ৫০ হজারের মত গরু এবং প্রায় ৩০ হাজার পিসের মত ছাগলের চামড়া পাওয়া গেছে। আমদানী অস্বাভাবিক কম হওয়ায় ঈদের দিন রাতের মধ্যেই চামড়া কেনা-বেচার কাজ শেষ হয়েছে। অথচ প্রতিবেশী দেশ ভারতে চামড়ার দাম সেই তুলনায় অনেক বেশি। ফলে বেশি দাম পাওয়ার আশায় এসব চামড়া রংপুর বিভাগের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচার হওয়ার আশংকা  করছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর