Alexa চলনবিলে নৌকাডুবিতে আরো তিন লাশ উদ্ধার

ঢাকা, শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৬ ১৪২৬,   ২১ মুহররম ১৪৪১

Akash

চলনবিলে নৌকাডুবিতে আরো তিন লাশ উদ্ধার

 প্রকাশিত: ১৭:৩৪ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৭:৩৪ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পাবনার চাটমোহরে চলনবিলে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ ৫ জনের মধ্যে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরী দল।

মরদেহগুলো সনাক্ত করেন তার স্বজনরা। এসময় নদী পাড়ে হাজার হাজার মানুষ সববেত হয়। নিহত ও নিখোঁজদের স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠে বিলের পরিবেশ।

এর আগে শনিবার সকাল ১১টার দিকে ঈশ্বরদীর মোশারফ হোসেন মুসার স্ত্রী শাহনাজ পারভীন পারুল এবং দুপুর দেড়টার দিকে স্বপন বিশ্বাসের কন্যা ঈশ্বরদী এসএম উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী সাদিয়া খাতুনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ সময় দূর্ঘটনা কবলিত নৌকাটিও উদ্ধার করা হয়। রাজশাহী থেকে আসা ডুবুরী দলের প্রধান মো. নুরুন্নবী এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এছাড়া শুক্রবার দিবাগত রাত ১টা ১০ মিনিটের দিকে উদ্ধার করা হয় ঈশ্বরদী আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা বিল্লাল হোসেন গণি’র স্ত্রী মমতাজ পারভীন শিউলীর মরদেহ।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে চলনবিলের চাটমোহর উপজেলার হান্ডিয়াল পাইকপাড়া ঘাট এলকায় নৌকাডুবির এ দুর্ঘটনা ঘটে। এখনও দুইজন নিখোঁজ রয়েছেন। এরা হলেন, ঈশ্বরদী আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. আব্দুল বেলাল গণি, ঈশ্বরদী আমবাগান এলাকার ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম স্বপন বিশ্বাস। এর আগে শুক্রবার রাত ১১টার দিকে রাজশাহীর একটি ডুবুরী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে এবং রাত ১১টা ৫০ মিনিটে পানিতে নেমে নিখোঁজদের সন্ধানে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে।

খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও উদ্ধার তৎপরতার খোঁজখবর নেন ডিসি জসিম উদ্দিন। আর রাতে ঘটনাস্থলে ছুটে যান চাটমোহর ইউএনও সরকার অসীম কুমার ও সিনিয়র সহকারী এসপি (চাটমোহর সার্কেল) তাপস কুমার পাল। ডিসি পরিদর্শন শেষে মৃতদের প্রত্যেক পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নগদ ২০ হাজার টাকা করে প্রদান করেন। এছাড়া প্রথম উদ্ধারকাজে অংশ নেয়া কিশোর সুমন হোসেনকে নগদ ৫ হাজার টাকা ও তার লেখাপড়ার দায়িত্ব নেন জেলা প্রশাসক। এদিকে নৌকা ও লাশ উদ্ধার একনজর দেখতে বিল পাড়ে এলাকার নারী-পুরুষ ভিড় জমায়।

ইউএনও সরকার অসীম কুমার জানান, নিখোঁজ আরও দু’জনকে উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল কাজ করছে। লাশ উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত তারা উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাবে। বিষয়টি জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হচ্ছে।

শুক্রবার ছুটির দিন থাকায় ঈশ্বরদী ডাল গবেষণা কেন্দ্রের কয়েকজন কর্মকর্তা ও কুষ্টিয়া উপজেলা থেকে আসা তাদের কয়েকজন বন্ধু ও তাদের পরিবারের ২২ জন সদস্য শুক্রবার সকালে চলনবিল ভ্রমণের উদ্দেশ্যে ভাঙ্গুড়া উপজেলার বড়াল ব্রীজ নৌবাড়িয়া ঘাট থেকে একটি নৌকা ভাড়া করে বিলের মধ্যে দিয়ে তাড়াশ উপজেলায় যান। পরে সন্ধ্যায় চাটমোহরে ফেরার পথে হান্ডিয়ালের পাইকপাড়া নামকস্থানে নৌকাটি আকষ্মিক উল্টে যায়। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা ১৭ জনকে উদ্ধার করতে পারলেও নৌকাসহ পানিতে তলিয়ে যায় ৫ জন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর