চকরিয়ায় প্রতিপক্ষের গুলিতে কাঁকড়া ব্যবসায়ী নিহত

ঢাকা, সোমবার   ২৪ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১২ ১৪২৬,   ১৯ শাওয়াল ১৪৪০

চকরিয়ায় প্রতিপক্ষের গুলিতে কাঁকড়া ব্যবসায়ী নিহত

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৩৬ ১৩ জুন ২০১৯  

কক্সবাজারের চকরিয়ায় চিংড়ি ঘেরের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের গুলিতে আবদুল হামিদ নামে এক যুবক মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলা চিরিঙ্গা ইউনিয়নের চরণদ্বীপ এলাকায় এ ঘটনায় ঘটে।

নিহত আবদুল হামিদ একই ইউনিয়নের চরণদ্বীপ এলাকার আহমদ হোছনের ছেলে।

জানা গেছে, বুধবার বিকেলে চিরিঙ্গা ইউনিয়নের চরণদ্বীপ এলাকায় চিংড়িঘেরের আধিপত্য নিয়ে আবদুস সালাম ও বাহাদুর গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও গোলাগুলি হয়। কিন্তু এ ঘটনায় কেউ আহত হয়নি। এ ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আবদুস সালাম গ্রুপের ১০-১২ জন স্বশস্ত্র লোক বাহাদুর গ্রুপের সদস্য আবদুল হামিদের ঘরে ঢুকে গুলি করে ও কুপিয়ে খুন করে পালিয়ে যায়।

নিহত আবদুল হামিদের স্ত্রী জোহরা বেগম বলেন, আমার স্বামী কোন দলের সঙ্গে জড়িত নয়। সে কাঁকড়া ব্যবসা করে কোন রকম জীবিকা নির্বাহ করে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চিংড়িঘের থেকে ঘরে আসার পরপরই সালাম বাহিনীর প্রধান আবদুস সালাম ও তার সেকেন্ড ইন কমান্ড এমরানের নেতৃত্বে  ১০-১২ জনের স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী ঘরে ঢুকে প্রকাশ্যে বুকে গুলি করে ও হাতে কুপিয়ে জখম করে হত্যা নিশ্চিত করে পালিয়ে যায়।

নিহত আবদুল হামিদের বড় ভাই আবদুল আজিজ বলেন, আবদুস সালামের সঙ্গে আমাদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। এর জের ধরে আমার ভাইকে হত্যা করা হয়েছে।  

চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান বলেন, দুইদল সন্ত্রাসীদের মধ্যে চিংড়িঘেরের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এরআগে বুধবার বিকালে ওই দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছি। সকালে খবর পেয়ে চিরিঙ্গা ইউনিয়নের চরণদ্বীপ এলাকায় গুলিতে নিহত আবদুল হামিদের মরদেহ উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম