Alexa ঘুরে আসুন ‘পাখির গ্রাম’ পুন্ডুরিয়া

ঢাকা, রোববার   ২৬ জানুয়ারি ২০২০,   মাঘ ১২ ১৪২৬,   ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

ঘুরে আসুন ‘পাখির গ্রাম’ পুন্ডুরিয়া

ভ্রমণ প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:৫৯ ৮ ডিসেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১২:১০ ৮ ডিসেম্বর ২০১৯

গ্রামটির পুকুরগুলোতে দেখা যায় মাছরাঙার দাপট

গ্রামটির পুকুরগুলোতে দেখা যায় মাছরাঙার দাপট

হেমন্তের রাতে গায়ে কাঁথা জড়িয়ে ঘুমালেন আপনি। চোখ বুজতেই হলো ভোর। চারদিকে কুয়াশার দাপট, চুলায় ভাপা পিঠা। আপনাকে বিছানা থেকে নামানোর দায়িত্বটা পাখিদের। নানা রংয়ের বর্ণের পাখির কিচিরমিচির ডাকে উঠে যেতেই হবে আপনাকে। পুন্ডুরিয়া গ্রামের প্রতিটি সকালই এমন।

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলায় পুন্ডুরিয়া গ্রামের অবস্থান। এই গ্রামে প্রবেশ করলেই হয়তো আপনি লিখে ফেলবেন- আহা শীতের সকালে কত ফুল ফোটে, কত পাখি গায়। এদেশ পাখির দেশ, কত পাখি আছে এই দেশে, কত রূপ! কত রং! কত গান সে পাখিরা জানে। নানা রং রূপের বৈচিত্রময় পাখিরা বাংলাদেশকে রূপময় করেছে।

পুন্ডুরিয়া গ্রামের ছন্দময় রূপে বিমোহিত হতে প্রতিদিন শত শত লোকজন আসেন। তাই পুন্ডুরিয়া গ্রাম এখন পাখির গ্রাম নামেও পরিচিতি লাভ করেছে। জানা যায়, ষাটের দশক থেকে এ গ্রামে দেশি বিদেশি নানা জাতের পাখিদের আগমন ঘটে। পাখিদের প্রতি গ্রামের লোকজনের ভালোবাসায় তারা খুঁজে পেয়েছে এক অভয়ারণ্য। এখানে বসবাস করা পাখি গুলো ডিম থেকে বাচ্চা ফুটানোর পাশাপাশি থাকছেও দলবেঁধে। এদের মধ্যে থাকা রাতচোরা, শামুকখোল, বক, পানকৌড়ি, হারগিলা ও বাদুর অন্যতম।

গাছে গাছে দেখা মেলে হাজারো পাখির

স্থানিয় রায়কালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহিনুর রহমান বলেন, পুন্ডুরিয়া পাখি গ্রাম হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। সরকারের সহযোগিতায় দেশি-বিদেশি ওই সব পাখিদের জন্য অভয়ারণ্য হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মাহফুজুর রহমান বলেন, পুন্ডুরিয়া গ্রামের গাছ গুলোতে প্রায় ১৫ থেকে ২০ হাজার পাখির বসবাস। পাখিগুলোকে রক্ষা করার জন্য যাতে কোনো রোগ বালাই না হয় সে জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করার পাশাপাশি তদারকি করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে/টিআরএইচ