ঘুমের আগে ত্বক চর্চা

.ঢাকা, শুক্রবার   ২৬ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১৩ ১৪২৬,   ২০ শা'বান ১৪৪০

ঘুমের আগে ত্বক চর্চা

 প্রকাশিত: ১৫:৩৭ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৫:৩৭ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ফ্রেশ থাকুন ফ্রেশ ঘুমান

ফ্রেশ থাকুন ফ্রেশ ঘুমান

সারাদিন স্কুল, কলেজ ও অফিস করে ক্লান্ত হয়ে বাসায় ফেরার পর রাতের ঘুমটা খুব ভালোই হয়। ভালো ঘুম হওয়ার পরেও সকালে কেনো যেন ফ্রেশ দেখায় না। ত্বক মলিন থাকে ও চোখের নিচে ডার্ক সার্কেল দেখা যায়। ঘুমের মাধ্যমে শরীরের সমস্ত রিপেয়ারিং এর কাজটি হয়ে থাকে। তাই ঘুমের আগে নিজের প্রতি কিছু বাড়তি যত্ন নিন এতে দেখবেন সকালটা যেমন আপনাকে ফ্রেশ দেখাবে সারাদিনও ঠিক তেমন ফ্রেশ থাকবেন। তবে চলুন জেনে নেই ঘুমের আগে কি কি করলে সারাদিনের ক্লান্তি কর চেহারার কিছুটা হলেও স্বস্তি পাবে।

১) ঘুমের আগে অবশ্যই ত্বক পরিষ্কার করে ঘুমানো উচিত। মেকআপ ও ধুলাবালির কারণে লোমকূপ বন্ধ থাকতে পারে। তাই অলিভ অয়েল বা মেকআপ রিমুভার দিয়ে মেকআপ তুলে নিন। ত্বকে মেকআপ না থাকলে শুধুমাত্র ফেসওয়াস দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। চাইলে হাতে তৈরি যেকোনো একটি প্যাক বা মুলতানি মাটি লাগাতে পারেন। ঘুমের আগে প্যাক ব্যবহার করলে ত্বক অধিক ফ্রেশ দেখায় পরদিন।

২) ভালোভাবে মুখ ধোয়ার পর অবশ্যই ত্বক উপযোগী ময়েশ্চরাইজার ব্যবহার করতে হবে। ময়েশ্চরাইজারের বদলে এলোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন। এটি মসৃণ ও দাগমুক্ত করে।

৩) চোখের নিচের কালো দাগ নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকেন অনেকে। অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা, রাত জাগা, পড়াশুনা ইত্যাদি কারণে চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে। তাই যাদের চোখের ডার্ক সার্কেল বা কালো দাগের সমস্যা থাকে তাঁরা ঘুমের আগে পেট্রোলিয়াম জেলি বা অ্যালোভেরা জেল অথবা এন্টি রিংকেল সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। এই তিনটি উপাদান ডার্ক সার্কেল দূর করায় দারুন উপকারী।

৪) শুকনো ও ফাঁটা ঠোঁট দেখতে কার ভালো লাগে? প্রাণ খুলে হাসা যায় না। তাই ঠোঁটকে পুষ্ট ও সজীব রাখতে ঘুমের আগে ঠোঁটে পেট্রোলিয়াম জেলি দিতে ভুলবেন না যেন। অথবা ঠোঁটে মধুর প্রলেপ দিতে পারেন। ঠোঁট ফাঁটা ও ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার মধু খুবই কার্যকরী একটি উপাদান। ঘুমের আগে এক ফোঁটা মধু ঠোঁটকে কতটা গোলাপি করে তার পার্থক্য টানা একসপ্তাহ ব্যবহার করলে বুঝতে পারবেন।

৫) যাদের চুল পড়ার সমস্যা রয়েছে তাঁরা রাতে চুলে তেল দিয়ে ঘুমাবেন। সকালে উঠে শ্যাম্পু করে ধুয়ে নিবেন। এতে চুল ঝরঝরে হয় ও রুক্ষ ভাব চলে যায়। চুল ভাঙা একটি বড় সমস্যা। বালিশের কাভার এর কারণে চুল ভেঙে যেতে পারে আবার চুলের ময়শ্চারাইজার শোষণ করে নেয় অনেক ধরনের কাভার। তাই বালিশের কাভার এমন হওয়া উচিত যা চুল পিছলে যায়। যেমন সিল্ক কাপড়ের তৈরি কাভার। এতে বালিশে চুল ভেঙে যাবে না ও চুল নিষ্প্রাণ হয়ে যাবে না।

৬) যাঁদের নখ ভাঙার সমস্যা রয়েছে তাঁরা ঘুমের আগে নখে পেট্রোলিয়াম জেলি বা নারিকেল তেল মাখিয়ে ঘুমিয়ে যাবেন। এতে নখ চকচকে ও হেলদি হবে।

৭) যাঁদের ত্বকে ব্রণের সমস্যা রয়েছে তাঁরা ঘুমের আগে মুখে বরফ ঘষে নিতে পারেন। বাড়তি যত্নের জন্য তিন টুকরা শসা, ৫টি পুদিনা পাতা, ৫ তুলসী পাতা ও ১ চামচ লেবুর রস ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে বরফ করে নিতে পারেন। এতে থাকা অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদানগুলো ব্রণের জীবাণুর বিরুদ্ধে কাজ করে। পাশাপাশি লোমকূপ ছোট করে ও ত্বকের দাগ দূর করতে খুবই কার্যকারী।রাতে ঘুমের আগে এক টুকরা বরফ ঘষে নিন। দেখবেন ধীরে ধীরে ত্বকে ব্রণের সমস্যা কমে আসছে। সকালে আপনাকে অনেক সতেজ ও ফ্রেশ দেখাবে।

৮) অনেকের চোখের পাতা ও আইব্রো পাতলা থাকে। এক্ষেত্রে ঘুমের আগে অইব্রোতে ও চোখের পাতায় ক্যাস্টর অয়েল অথবা ভেসলিন ব্যবহার করতে পারেন। ইদানিং চোখের পাপড়ি বড় করার সিরাম বের হয়েছে সেটিও ব্যবহার করতে পারেন।

৯) পা ফাটার সমস্যা নতুন কিছু নয়। ত্বকের শুষ্কতার কারণে অথবা কোন ধরনের ময়েশ্চারাইজার না ব্যবহারের কারণে ত্বক ফাঁটার সমস্যা হয়ে থাকে। পায়ের ফাঁটা দাগ দূর করতে ঘুমানোর আগে অবশ্যই পা দুটো সাবান দিয়ে ভালো ভাবে ধুয়ে নিবেন। এরপর পায়ে পেট্রোলিয়াম জেলি বা পা ফাঁটা রোধ নানা ধরনের ক্রিম পাওয়া যায় সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসজেড