Alexa গ্রাম্য সালিশে হাত বেঁধে অটোচালককে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন  

ঢাকা, শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৫ ১৪২৬,   ২০ মুহররম ১৪৪১

Akash

গ্রাম্য সালিশে হাত বেঁধে অটোচালককে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন  

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:০১ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৪:০৮ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

নওগাঁয় মানিব্যাগ চুরির অভিযোগে রেজাউল ইসলাম (৩৮) নামের এক অটোচালককে গ্রাম্য সালিশে হাত বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে। 

রোববার রাত ১০টার দিকে মান্দা উপজেলার হুলিবাড়ী চকেরহাট চৌরাস্তার মোড়ে আয়োজিত এক সালিশে এ নির্যাতন করা হয়। উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের পারইটুঙ্গী গ্রামের আবদুল হামিদের ছেলে রেজাউল ইসলাম। বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে রেজাউল ইসলামের স্ত্রী বাদী হয়ে ৭ থেকে ৮ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

চিকিৎসাধীন রেজাউল ইসলাম জানান, শনিবার রাত ৮টার দিকে চকেরহাট প্রমোদ কুমার মন্ডলের দোকানে চা খাই। সে সময় চায়ের দোকানে আরো লোকজন বসা ছিল। রোববার মামুনুর রশিদ ও ইউপি সদস্য আমার বিরুদ্ধে এক ব্যক্তির মানিব্যাগ চুরির অভিযোগ করেন। তারা ১০ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় রাতেই গ্রাম পুলিশ দিয়ে চকেরহাটে ধরে এনে  মাতবররা হাত বেঁধে আমাকে নির্যাতন করেছেন।

তিনি আরো জানান, তাদের নির্যাতনে আমি গুরুতর অসুস্থ হয়ে যাই। স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক মোজাহার হোসেন আমাকে চিকিৎসা দিয়েছেন। সোমবার সকালে আরো অসুস্থ হলে আত্মীয়-স্বজনরা মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এদিকে ঘটনা প্রসঙ্গে সালিশের সভাপতি ইউপি সদস্য মোজাম্মেল হক জানান, পারইটুঙ্গী গ্রামের ঝড়ের মানিব্যাগ চুরির অভিযোগে সালিশ বৈঠক ডাকা হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রেজাউল ইসলামকে ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানার টাকা দিতে অস্বীকার করায় তাকে পেটানো হয়েছে।

মান্দা থানার ওসি মোজাফফর হোসেন জানান, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সালিশে অন্যান্যের মধ্যে ইউপি সদস্য বেলাল হোসেন, নারী ইউপি সদস্য বিলকিস খাতুনের স্বামী দুলাল হোসেন, মাতবর মামুনুর রশিদ, গ্রাম পুলিশ সোহেল রানাসহ অন্যান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর