Alexa আগের হামলায় জখম, এবার মৃত্যু

ঢাকা, বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৩ ১৪২৬,   ১৮ মুহররম ১৪৪১

Akash

আগের হামলায় জখম, এবার মৃত্যু

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:০৩ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৭:০৫ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

দুই বছর আগে প্রতিপক্ষরা হুমায়ূনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছিল। তখন কোনো রকমে প্রাণে বেঁচে গেলেও এবার আর বাঁচতে পারলেন না। বুধবার রাতে ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলায় দুইদল গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন সেই হুমায়ুন।

এ সংঘর্ষে তার ভাই জজ ও তার মা রাহেনা খাতুন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। 

নিহত হুমায়ূন উপজেলার রাওনা গ্রাামের রাওনা গ্রামের মতিন মিয়ার ছেলে। নিহত হুমায়ূনের ভাই জজকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলার রাওনা ইউপির রাওনা গ্রামের পূর্বপাড়া এলাকার মতিন মিয়ার বাড়ির লোকজনের সঙ্গে একই ইউপির ধোপাঘাট গ্রামের নামাপাড়া এলাকার শহর মেম্বারের বাড়ির লোকজনের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এরই জেরে বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ধোপাঘাট নামাপাড়া গ্রামের লোকজন রাওনা গ্রামের কাঞ্চন মিয়াকে মারধর করে। রাত ৮টার দিকে ধোপাঘাট গ্রামের শরীফুল, নয়ন, ছাইদুল, সিরাজ, সুমন, কফিলউদ্দিন, ছাত্তারের নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র লোক ৩-৪টি মোটরসাইকেল করে রাওনা গ্রামের মতিন মিয়ার বাড়িতে হামলা চালিয়ে লুটপাট করে এবং হুমায়ূনের বৃদ্ধ মা রাহেনা খাতুনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। বাড়ির নারী ও শিশুদের রামদা, কিরিচ দেখিয়ে ধাওয়া করে। এ বাড়ির নারী ও শিশুরা পার্শ্ববর্তী বাদল মিয়ার বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয়। শরীফুল, নয়ন, ছাইদুল বাহিনী মতিন মিয়ার বাড়িতে হামলা শেষে ধোপাঘাট বাজারে গিয়ে রাওনা গ্রামের ইসমাইলের চা স্টল ভাঙচুর করে। 

খবর পেয়ে রাত সাড়ে নয়টার দিকে হুমায়ূন ও জজ এর নেতৃত্বে রাওনা গ্রামের বেশ কয়েকজন লোক সংঘটিত হয়ে ধোপাঘাট বাজারে যায়। ধোপাঘাট বাজারে শরীফুল, নয়ন, ছাইদুল, সিরাজের নেতৃত্বে ধোপাঘাট গ্রামের ৩০-৪০ জন লোক রামদা, বল্লম, কিরিচ ও চাপাতি নিয়ে রাওনা গ্রামের লোকজনের ওপর হামলা করে। 

এ সময় ধোপাঘাট গ্রামের সশস্ত্র লোকজন রাওনা গ্রামের মতিন মিয়ার ছেলে হুমায়ূন ও জজকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে নেয়া হয়। ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে নেয়ার পথে হুমায়ুনের মৃত্যু হয়। 

এ ব্যাপারে গফরগাঁও থানার ওসি অনুকূল সরকার জানান, এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে, এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ