Alexa গ্রামবাসীর ধাওয়া, পালালেন শিক্ষক

ঢাকা, বুধবার   ২১ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৬ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

গ্রামবাসীর ধাওয়া, পালালেন শিক্ষক

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:২২ ২২ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ১৩:২৬ ২২ জুলাই ২০১৯

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

বরগুনার পাথরঘাটায় গ্রামবাসীর ধাওয়া খেয়ে পালিয়েছেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষক। ওই বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে তাকে ধাওয়া দেন গ্রামবাসী। এরপর থেকে প্রধান শিক্ষক পলাতক রয়েছেন।  

শনিবার দুপুরে উপজেলার কালমেঘা ইউপির দক্ষিণ পূর্ব ঘুটাবাছা নুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের নাম মাওলানা আ. হালিম।

পাথরঘাটা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. ছগির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ছাত্রীদের বরাত দিয়ে ওই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. নেছার উদ্দিন জানান, মাওলানা আ. হালিম প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদানের পর শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়ানো শুরু করেন। লেখাপড়া না পারলে মেয়েদের শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিতেন তিনি। গত ১৬ জুলাই বিদ্যালয় বন্ধ ছিল। ওই দিন বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে পঞ্চম শ্রেণির কয়েকজন ছাত্রীকে প্রাইভেট পড়ান প্রধান শিক্ষক।এ সময় দুজন ছাত্রীর স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন তিনি।ওই দিনই ছাত্রীরা অভিভাবকের কাছে বিষয়টি জানায়। এ ঘটনা স্কুলের আশপাশের লোকেরা জেনে প্রধান শিক্ষকের ওপর ক্ষিপ্ত হন।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. ছগির হোসেন জানান, ছাত্রীদের সঙ্গে অশোভন আচরণের জন্য প্রধান শিক্ষককে তিন দিনের ছুটিতে পাঠানো হয়। পরে শনিবার প্রধান শিক্ষক স্কুলে গেলে গ্রামবাসী ধাওয়া দেন। এতে প্রধান শিক্ষক আব. হালিম পালিয়ে যান।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক আব. হালিম জানান, সহকারী শিক্ষক মো. নেছার উদ্দিন আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছেন। তারপরও বিভিন্ন লোকদের মাধ্যমে বিষয়টি মীমাংসা করেছি।

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা উপজেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কর্মকর্তা নগেন্দ্রনাথ হাওলাদার জানান, বিষয়টি মৌখিকভাবে শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ

Best Electronics
Best Electronics