.ঢাকা, সোমবার   ২২ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ৮ ১৪২৬,   ১৬ শা'বান ১৪৪০

গৃহবধূর মরদেহ রেখে পালিয়েছে শশুরবাড়ির লোকজন

 প্রকাশিত: ১৩:০০ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৩:০০ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে গৃহবধূর মরদেহ রেখে শশুর বাড়ির লোকজন পালিয়েছে। পরিবারের দাবি পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে। 

নিহত শারমিন বেগম সিরাজদিখান উপজেলার আবির পাড়া গ্রামের দীন ইসলামের বড় মেয়ে। তার স্বামী আলম দেওয়ান টঙ্গিবাড়ি উপজেলার মারিয়ল গ্রামের রাজ্জাক দেওয়ানের ছেলে।

বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপালে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার মেয়ে পক্ষের লোকজন মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে এসে এ সব অভিযোগ করেন।

শারমিনের খালু জহিরুল হক বলেন, বিয়ের পর থেকে তার শশুরবাড়ি লোকজন নির্যাতন চালাতো। প্রতিবাদ করলে মেয়েকে মারার হুমকি দিতো। এখনো আইভির খোঁজ জানা যায়নি। শারমিনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের কর্তব্যরত ডা: শৈবাল বশাক জানায়,শারমিন বেগম ও তার মেয়ে আইভি সাপ তাড়ানোর ওষুধ খেয়েছে বলে শশুরবাড়ির লোকজন হাসপাতালে দিয়ে যায়। হাসাপাতালে নিয়ে আসার আগেই মারা যায় শারমিন। তার মেয়ে আইভিকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

টঙ্গিবাড়ি থানার ওসি শাহ মো: আওলাদ হোসেন জানায়, এটা হত্যা না আত্মহত্যা ময়নাতদন্ত রিপোর্টের পর বলা যাবে। কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসকে/জেডএম