গুগলের উদ্ভাবন, মশা মারবে মশাকেই!

ঢাকা, শনিবার   ২৫ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৬,   ১৯ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

গুগলের উদ্ভাবন, মশা মারবে মশাকেই!

নিউজ ডেস্ক :: news-desk

 প্রকাশিত: ১৭:০৫ ৮ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৭:০৫ ৮ ডিসেম্বর ২০১৮

সংগৃহীত

সংগৃহীত

মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ বাংলাদেশসহ বিশ্ববাসী। মশা মারতে তাই নিত্য নতুন পন্থা উদ্ভাবন করছে বিজ্ঞানীরা। কিন্তু এত সব পন্থা অবলম্বনের পরেও তেমন একটা লাভ হচ্ছেনা।

তাই এবার মশা মারতে যুগান্তকারী এক উপায় বের করেছে ইন্টারনেট ভিত্তিক সার্চ জয়ান্ট গুগল। তারা মশা মারতে মশাকেই ব্যাবহার করতে চলেছেন! মশাদের বিরুদ্ধে মশাদেরকেই ‘যুদ্ধে’ নামানোর এই কার্যক্রমে হাত দিয়েছেন গুগলের মূল সংস্থা ‘অ্যালফাবেট’।

সংস্থাটির বিজ্ঞানীরা দাবি করেন, এভাবেই নির্মূল করা হবে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়ার মত রোগ ছড়ানো মশাদের।

এই পরিকল্পনা কীভাবে কাজ করবে সে প্রসঙ্গে অ্যালফাবেট জানিয়েছে, যুদ্ধে যেমন সুন্দরী ও আবেদনময়ী গুপ্তচরদের দ্বারা ফাঁদে ফেলে বিপক্ষের সেনাবাহিনীর গোপন খবরাখবর নেয়া হয় ঠিক সেভাবেই চিকুনগুনিয়া ও ডেঙ্গুর জীবাণুবাহি স্ত্রী মশাদের ফাঁদে ফেলতে ব্যবহার করা হবে পুরুষ মশা।

এসব পুরুষ মশার থাকবে ভিন্ন একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য। সেজন্যে এসব পুরুষ মশাদের দেহে গুগলের বিজ্ঞানীরা ঢুকিয়ে দিবেন ‘উলবাচিয়া’ প্রজাতির একটি ব্যাকটেরিয়া। তবে এই ধরনের ব্যাকটেরিয়া মানুষ ও অন্যান্য পশুপাখির ক্ষেত্রে ক্ষতিকারক নয়।

এই ব্যাকটেরিয়া বহনকারী পরুষ মশা যদি কোন স্ত্রী মশার সাথে মিলন করে তবে স্ত্রী মশা হারিয়ে ফেলবে তার ডিম পাড়ার ক্ষমতা। ফলাফল হিসেবে মশার বংশ আর বাড়বে না। জন্ম নিবেনা আর নতুন কোনো জীবাণুবাহী মশা। আর এভাবেই ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়ার মতো ভয়ঙ্কর রোগ থেকে রেহাই পাবে মানুষ।

সংস্থার মুখপাত্র ক্যাথলিন পার্কস বলেছেন, ‘তারা বিশাল একটি এলাকাজুড়ে একটি টিউব থেকে আশপাশের জঙ্গল ও লোকালয়ে ছড়িয়ে দেয় শরীরে ‘উলবাচিয়া’ ব্যাকটেরিয়া ঢুকানো প্রায় ৮০ হাজার পুরুষ মশা। যাদের টানে কাছে এসে পুরো এলাকার স্ত্রী মশারা মিলনের পর পুরোপুরি বন্ধ্যা হয়ে যায়।’

তাই বলা যায় গুগলের এই উদ্ভাবনের সঠিক প্রয়োগ হলে মশার অত্যাচার থেকে বিশ্ববাসীকে অনেকটাই রেহাই দেয়া যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএ

Best Electronics