গাছ কর্তন চলছে!

ঢাকা, সোমবার   ১৭ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৩ ১৪২৬,   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

গাছ কর্তন চলছে!

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৬:০২ ১৩ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৬:০২ ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পটুয়াখালী সদর উপজেলার আউলিয়াপুর  ইউপি চেয়ারম্যানের লোকদের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে। 

আউলিয়াপুর এলাকাধীন সড়কের পাশে বড় আকারের মেহেগনি, আকাশমনিসক কয়েক প্রজাতির গাছ কর্তন চলছে। এ ঘটনায় রোববার বন বিভাগ কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট ইউপি সংলগ্ন একটি স-মিল থেকে কয়েকটি গাছ জব্দ করেছে। 

সরেজমিন গেলে এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন,  ১৭ থেকে ২০ টি বড় আকারের মেহেগনি, আকাশমনিসহ কয়েক প্রজাতির গাছ কেটে নিয়ে গেছে স্থানীয় বেলাল মৃধা, সোহেল মৃধা এবং  আলমগীর খানসহ ৭ /৮ জনের একটি দল।   

এসময় স্থানীয়রা গাছ কাটার বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, আউলিয়াপুর ইউপি চেয়ারম্যান পরিষদের ফার্নিচার বানাবে তাই গাছ গুলো কাটা হচ্ছে। পরে শনিবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বনবিভাগ ও পুলিশ সংবাদকর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলে গাছ কাটার দলটি ঘটনাস্থল থেকে সঠকে পড়ে। 

রোববার সরেজমিনে গিয়ে পটুয়াখালী বন বিভাগের সদর রেঞ্জ অফিসার মাহাবুব আলম বানিয়াবাড়ি বাজারে ইব্রাহীম বিশ্বাসের মালিকাধীন একটি স-মিল থেকে চারটি বড় আকারের কাটা মেহেগনি গাছ জব্দ করেছে। এসময় স-মিল মালিক ও শ্রমিকরা ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়ে। 

স-মিল মালিক ইব্রাহীম বিশ্বাস বলেন, তিনি স-মিলটি মনির তালুকদারের কাছে ভাড়া দিয়েছেন।  

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন বলেন, মুন্সুর হাজি বাড়ি সংলগ্ন একটি মাত্র গাছ কেটে ইউনুচ বেপারীর কাছে ২৬ হাজার টাকায় বিক্রি করেছে। সে ক্ষেত্রে ওই দলটি অন্তত ৫ লাখ টাকার গাছ কেটে নিয়েছে।  

এ বিষয়ে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির বলেন, গাছ কাটার সঙ্গে তার কোন সম্পৃক্ততা নেই। তিনি বর্তমানে এলাকার বাইরে আছেন। এলাকায় ফিরে এ বিষয়ে খোঁজ খবর নিবেন। 

ইউএনও লতিফা জান্নাতি বলেন, অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে কিছু গাছ স্থানীয় একটি স-মিল থেকে জব্দ করা হয়েছে। কি পরিমান গাছ কাটা হয়েছে তা নিরুপন করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে