Alexa গাছে ধরে ‘নারী ফল’

ঢাকা, শুক্রবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ৮ ১৪২৬,   ২৬ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

গাছে ধরে ‘নারী ফল’

মজার খবর ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৩৬ ৩ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ০৩:৫১ ৪ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

গাছের সঙ্গে মানবদেহের সম্পর্ক তৈরি করতে অনেক চেষ্টা চালিয়েছে মানুষ। তবে এসব চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে বারবার। তবে থাইল্যান্ডের একটি গ্রামের জঙ্গলে রয়েছে নারীর দেহ আকৃতির এক ধরনের ফল। যেটি বিশ্বাস করা কঠিন। তবে পৃথিবীতে একটি গাছ রয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে। গাছে ধরা ফলগুলো দেখতে ঠিক নারীর দেহের মতো।

স্থানীয়দের দাবি, গাছে ধরা নারী ফলের সঙ্গে থাই পুরাণের একটি যোগসূত্র থাকতে পারে। এ নিয়ে পুরাণে একটি কাহিনীর বর্ণনা দেয়া হয়েছে।

পুরাণের তথ্যানুযায়ী, ‘হিমাফন’ নামের এক জঙ্গলে পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন দেবতা ইন্দ্র। একদিন খাবারের সন্ধানে বের হন তার স্ত্রী ভেসানতারা। কিন্তু কয়েক পুরুষ তাকে আক্রমণ করে বসে। নারী দেহ দেখার পরই পুরুষদের হিংসাত্বক মনোভাব প্রকাশ পেয়েছিল। এ ঘটনার পর ইন্দ্র দেব অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়ে ওই জঙ্গলে ১২টি গাছ তৈরি করেন। নাম দেন ‘নরিফোন’।

সেই গাছে নারীর দেহের আকারে ফল ধরতে শুরু করে। ভেসানতারার আদলেই নারীর মুখ তৈরি হয়। এরপর থেকে ভেসানতারা খাবারের সন্ধানে বের হলে সেই কামুক পুরুষরা ফলগুলো দেখলেই বিভ্রান্ত হয়ে যেত। তারা মনে করতো, এগুলো আসল ভেসানতারা। আর এ সুযোগে ইন্দ্রের স্ত্রী নিরাপদে ঘরে ফিরে আসতেন। এখানেই শেষ নয়, সেই ফলগুলোকে কামুক পুরুষরা নিজেদের ঘরে নিয়ে সম্ভোগ করত।

পরে টানা চার মাস ঘুমিয়ে থাকত ও তাদের সব শক্তি দুর্বল হয়ে পড়ত। অর্থাৎ স্ত্রীকে রক্ষা করতে নারী দেহের টোপ দিয়েছিলেন থাই দেবতা ইন্দ্র।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/আরএ