গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করে কমিটি করছে চট্টগ্রাম ছাত্রদল

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৪ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২০ ১৪২৭,   ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করে কমিটি করছে চট্টগ্রাম ছাত্রদল

চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৪৭ ১ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৬:০৫ ১ আগস্ট ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

মাঠের বাইরে থেকেই এবার কমিটি গঠন করতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম ছাত্রদলের তিনটি ইউনিট। তাও আবার সাংগঠনিক গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করেই! বয়স্ক, অছাত্র, বিবাহিত, কয়েক সন্তানের জনক এমন কয়েকজন কমিটিতে স্থান পাচ্ছেন বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের একটি সূত্র।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম উত্তর ও দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের আংশিক কমিটিগুলোকে পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে রূপ দিয়ে নগরে হবে নতুন কমিটি। আর এসব কমিটিতে স্থান পেতে তোড়জোড় শুরু করেছেন বিবাহিতদের অনেকেই। তবে বিবাহিত ও অছাত্রদের মধ্যে যারা দীর্ঘদিন দলের হয়ে কাজ করেছেন তাদের দিয়েই আহ্বায়ক কমিটি করা হতে পারে।

২০১৩ সালের ২১ জুলাই গাজী সিরাজ উল্লাহকে সভাপতি ও বেলায়েত হোসেন বুলুকে সাধারণ সম্পাদক করে চারজন সহ-সভাপতি, চারজন যুগ্ম সম্পাদক ও একজন সাংগঠনিক সম্পাদক নিয়ে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের ১১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল। সেই কমিটিকে এক মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করে কেন্দ্রে জমা দিতে বলা হলেও দীর্ঘ সাত বছরেও জ্যেষ্ঠ নেতাদের দ্বন্দ্বে তা হয়ে উঠেনি।

এদিকে, ১১ সদস্যের সেই কমিটির চার যুগ্ম সম্পাদকের একজন জালাল উদ্দিন সোহেল মারা গেছেন। এছাড়া বাকি ১০ জনের নয়জনই পদ নিয়ে মূল দলসহ সহযোগী সংগঠনগুলোতে পাড়ি জমিয়েছেন।

কমিটির সভাপতি ও বর্তমান মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক গাজী সিরাজ উল্লাহ বলেন, নগর ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠনের কাজ চলছে। বিবাহিত ও অবিবাহিতদের সমন্বয়ে এ কমিটি গঠন করা হবে বলেও কেন্দ্র থেকে বলা হচ্ছে। তাই অনেকেই ফরম নিচ্ছেন। দুটির সমন্বয়ে কমিটি হলে আশা করি অতীতে দলের জন্য কাজ করা ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন নিশ্চিত হবে।

২০১৮ সালের ১ আগস্ট শহীদুল আলমকে সভাপতি ও মোহাম্মদ মহসীনকে সাধারণ সম্পাদক করে দক্ষিণ জেলার পাঁচ সদস্যের কমিটির অনুমোদন দিয়েছিলেন ছাত্রদলের তৎকালীন সভাপতি রাজিব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। পরে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে কমিটির সহ-সভাপতি ইকবাল হায়দার চৌধুরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক জমির উদ্দিন মানিক পদ থেকে অব্যাহতি পান। এছাড়া মা ও বোনকে মারধর করে টাকা চুরির মামলায় গত ৫ জুলাই গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কে এম আব্বাস।

অপরদিকে, জাহিদুর আফসার জুয়েলকে সভাপতি ও মনিরুল আলম জনিকে সাধারণ সম্পাদক করে উত্তর জেলা ছাত্রদলের আংশিক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল। এরপর সেই কমিটি আর পূর্ণতা পায়নি। 

কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের এক নেতা বলেন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ও দক্ষিণ জেলার আংশিক কমিটি দুটির অনুমোদন দিয়েছিলেন তৎকালীন সভাপতি রাজিব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। পরবর্তীতে নানা সমস্যার কারণে কমিটিগুলো আর পূর্ণাঙ্গ হয়ে উঠেনি। ফলে কমিটি দুটি পূর্ণাঙ্গ করা ও নতুন করে নগর কমিটি গঠনের কাজ চলছে। 

কমিটিতে বিবাহিতদের স্থান পাওয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকায় জেলা ও নগর পর্যায়ের অনেক সক্রিয় কর্মীরা পদ-পদবির বাইরে ছিলেন। মূলত তাদের কথা বিবেচনায় রেখে শীর্ষ পদ বাদে অন্যান্য পদগুলোতে বিবাহিতদের রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এতে ত্যাগীরা মূল্যায়ন পাবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ/এইচএন