Alexa খুলে দেয়া হলো টোকিও অলিম্পিকের মূল স্টেডিয়াম 

ঢাকা, রোববার   ২৬ জানুয়ারি ২০২০,   মাঘ ১৩ ১৪২৬,   ০১ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

খুলে দেয়া হলো টোকিও অলিম্পিকের মূল স্টেডিয়াম 

স্পোর্টস ডেস্ক   ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২৪ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৫:২৫ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

আগামী বছর জাপানের টোকিও শহরে বসবে গ্রীষ্মকালীণ অলিম্পিকের ৩২তম আসর। ৭ মাস আগেই আনুষ্ঠানিক ভাবে খুলে দেয়া হয়েছে টোকিও অলিম্পিক স্টেডিয়াম। ৬০ হাজার ধারনক্ষমতা সম্পন্ন স্টেডিয়ামটিতেই ২০২০ অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। আগামী বছর ২৪ জুলাই থেকে ৯ আগস্ট পর্যন্ত চলবে প্রতিযোগিতা। তবে ঐ সময় জাপানের প্রচন্ড গরমের কথা বিবেচনা করে অলিম্পিক স্টেডিয়ামটিতে নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা।

১৯৬৪ সালে প্রথমবারের মত টোকিওতে অনুষ্ঠিত অলিম্পিকের জন্য এই স্টেডিয়ামটিই ব্যবহার করা হয়েছিল। সেই স্টেডিয়ামটির মূল কাঠামোকে ঠিক রেখে নতুনভাবে সংষ্কার করা হয়েছে। মাটি থেকে যার উপরে রয়েছে পাঁচ তলা ও মাটির নীচে রয়েছে আরো দুই তলা। চারিদিকে সবুজ গাছ দিয়ে সাজানো হয়েছে। ১৮৫টি ফ্যানস লাউঞ্জ ছাড়াও রয়েছে ১৬টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিন লাউঞ্জ। মূল স্টেডিয়ামের উচ্চতা যেখানে ছিল ৭০ মিটার সেখানে এটিকে কমিয়ে নতুন স্টেডিয়ামমের উচ্চতা নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৭ মিটার।

স্টেডিয়ামের সুযোগ সুবিধা উদ্বোধন করতে এসে প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে অত্যাধুনিক ডিজাইন ও চারপাশের পরিবেশের ভূয়শী প্রশংসা করেছেন।

জাপানের বিখ্যাত আর্কিটেক্ট কেংগো কুমা পুরো স্টেডিয়ামের ডিজাইন করেছেন। জাঁকজমকপূর্ণ উদ্বোধণী ও সমাপনী অনুষ্ঠান আয়োজনের সকল প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। যদিও অলিম্পিকের ঐতিহ্যগত শেষ ইভেন্ট ম্যারাথন এখানে অনুষ্ঠিত হবে না। টোকিওর গরম ও আর্দ্রতাকে এড়ানোর জন্য ইতোমধ্যেই এই ইভেন্টটি সড়িয়ে জাপানের উত্তরাঞ্চলীয় হোকাইডোতে অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

আয়োজক সূত্রে জানা গেছে পুরো স্টেডিয়ামটির ডিজাইন ও নির্মাণ বাবদ প্রায় ১৫৬.৯ মিলিয়ন ইয়েন ব্যয় হয়েছে যা নির্ধারিত বাজেটের মধ্যেই সীমাবদ্ধ আছে।

আগামী ২১ ডিসেম্বর সাবেক গতি মানব উইসাইন বোল্ট একটি বিশেষ প্রীতি রিলেতে অংশ নিতে অলিম্পিক স্টেডিয়ামের ট্র্যাকে নামবেন। আর এর মাধ্যমেই টোকিওর স্টেডিয়ামে প্রথমবারের মত কোন ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। তবে নতুন বছরের প্রথম দিনে এম্পেররস কাপ ফুটবল ফাইনালের মধ্য দিয়ে প্রথম কোন প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক ম্যাচ এখানে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস