.ঢাকা, শুক্রবার   ১৯ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ৬ ১৪২৬,   ১৩ শা'বান ১৪৪০

খলিলের চতুর্থ প্রয়াণ দিবস আজ

বিনোদন প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৫:১৮ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৫:২৮ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮

খলিল উল্যাহ খান। ফাইল ছবি

খলিল উল্যাহ খান। ফাইল ছবি

ষাটের দশকের বাংলা ছবির খ্যাতিমান অভিনেতা খলিল উল্যাহ খানের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১৪ সালের ৭ ডিসেম্বর পৃথিবীর মায়া ছেড়ে পরপারে পাড়ি জমান এ অভিনেতা।  গুণী এই শিল্পীকে স্মরণ করে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতে দোয়া ও মিলাদের আয়োজন রয়েছে বলে জানা যায়।

অভিনয়ে খলিলের ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল টিভি নাটক দিয়ে। তবে চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবেই পেয়েছেন মানুষের বিপুল ভালোবাসা। ৫৪ বছরের ক্যারিয়ারে প্রায় ৮০০ সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। ১৯৫৯ সালে জহির রায়হান পরিচালিত ‘সোনার কাজল’ সিনেমায় প্রথম অভিনয় করেন।

খলিল অভিনীত উল্লেখযোগ্য সিনেমাগুলোর মধ্যে রয়েছে পুনম কি রাত, ভাওয়াল সন্ন্যাসী, উলঝান, সমাপ্তি, তানসেন, নদের চাঁদ, পাগলা রাজা, বেঈমান, অলঙ্কার, মিন্টু আমার নাম, ফকির মজনু শাহ, কন্যাবদল, মেঘের পরে মেঘ, আয়না, মধুমতি, ওয়াদা, ভাই ভাই, বিনি সুতার মালা, মাটির পুতুল, সুখে থাকো, অভিযান, কার বউ, কথা কও, দিদার, আওয়াজ, নবাবসহ সাড়া জাগানো বেশ কিছু ছবি।

১৯৬৬ সালে এসএম পারভেজ পরিচালিত ‘বেগানা’ সিনেমায় প্রথমবারের মতো খলনায়কের চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। ১৯৬৫ সালে ‘ভাওয়াল সন্ন্যাসী’ সিনেমার মাধ্যমে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। ‘সিপাহী’ ও ‘এই ঘর এই সংসার’ নামে দুটি সিনেমা প্রযোজনা করেছেন খলিল।

শহীদুল্লাহ কায়সারের উপন্যাস অবলম্বনে আবদুল্লাহ আল মামুন পরিচালিত ধারাবাহিক নাটক ‘সংশপ্তক’ এর মিয়ার বেটা চরিত্রে অভিনয় করে দারুণ প্রশংসিত হন। বিটিভিতে প্রচার হয়েছিল সংশপ্তক । বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন এই অভিনেতা। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১২ এর আজীবন সম্মাননায় তিনি ভূষিত হন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনএ/জেডআর