Exim Bank
ঢাকা, সোমবার ২১ মে, ২০১৮
iftar
বিজ্ঞাপন দিন      

‘খদ্দের’রা কেমন হয়, জানালেন ‘যৌনকর্মী’!

 সাত রঙ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৫৬, ১১ মে ২০১৮

৫১৫৩ বার পঠিত

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

যৌনকর্মী শব্দটির সঙ্গে আমরা কমবেশি সকলেই পরিচিত। এই পেশায় কেউই নিজ থেকে আসে না। তাদের কাউকে জোড় করে এই পেশায় আনা হয়। আবার কেউ কেউ চরম পরিস্থিতির শিকার হয়ে এই পেশায় আসতে বাধ্য হন।

এবার, তাদের কাছে আসা পুরুষরা কেমন হয়? বিষয়টি পরিষ্কার করলেন এক যৌনকর্মী। নিজের বাস্তব জীবনের গল্প থেকে জানালেন কী ধরনের খদ্দেরের দেখা মেলেছিল তার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই যৌনকর্মীর মতে, কিছুদিন আগের ঘটনা। চামড়ার বুট পায়ে দাঁড়িয়ে ছিলাম। আচমকাই এক ব্যক্তি এসে আমার হাতে কিছু টাকা ধরিয়ে দিয়ে সেখান থেকে আমাকে নিয়ে যাই।

দ্বিতীয় আরেক ব্যক্তির সঙ্গে দেখা মেলে, যে কিনা আমার সঙ্গে একটি ঘরে সঙ্গমে লিপ্ত হয়েছিলেন, সেই ঘরে একটি ফুটো করে রেখেছিলেন ওই ব্যক্তি! যাতে বাইরে থেকে তার বন্ধুরা অনায়াসে মিলনের সব দেখতে পারেন।

তৃতীয় এক ব্যক্তি সঙ্গে দেখা হয় তার, যে কিনা নিজের বিজনেস প্রতিষ্ঠানে আমাকে নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু কখনো আমার সঙ্গে সঙ্গম লিপ্ত হননি। এমনকি একই বিছানায় শুয়েও আমাকে স্পর্শ করেননি। এমন ঘটনা বেশ অবাক করেছিল আমাকে।

আবার এমনো কয়েক জনের সঙ্গে দেখা হয়েছিল আমার, যারা আমার কাছে আসলে বলত, যদি মেয়ে হতাম তাহলে দেহ ব্যবসাকেই বেছে নিতাম। যৌনকর্মীদের পেশা তাদের দারুণ পছন্দের ছিল।

আরো কিছু খদ্দেরের দেখা হয় তার, যারা কখনো সেক্সের জন্য জোর করতেন না। না করতে চাইলে টাকা দিয়ে চলে যেতেন। আবারো আমার কাছে আসতেন। তার মতে, হয়ত এর দু’টি কারণ হতে পারে।

১. আমি ঘণ্টায় তাদের থেকে বেশি আয় করতাম বলে
২. হয়তো তারা আমায় সম্মান করতো বলে।

এছাড়া আরেকজন খদ্দের ছিল তার, যে কিনা নিয়মিত ছিল। আসলেই মিলন হত, কিন্তু মাঝে মধ্যে না আসলেও অর্থ পাঠিয়ে দিতো।

আর কিছু খদ্দের ছিল যারা পার্টিতে নিয়ে যেত। সেখান থেকে এসে একাধিক মদ্যপ পুরুষের সঙ্গে সঙ্গম করতে রাজি করাতো। তারা একাধিকে বিশ্বাসী ছিল।

সবশেষ, অল্প বয়সি খদ্দেররা নিজেদের অতিরিক্ত স্মার্ট মনে করতো। তারা সঠিক দাম তো দিতোই না বরং উল্টো চোখের আড়ালে যাওয়ার সমর টাকা চুরি করতো।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআই

সর্বাধিক পঠিত