ক্লাবের নাম ভাঙিয়ে গাছ কেটে নিলো চেয়ারম্যানের লোকজন

ঢাকা, শনিবার   ১১ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ২৭ ১৪২৭,   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

ক্লাবের নাম ভাঙিয়ে গাছ কেটে নিলো চেয়ারম্যানের লোকজন

পটুয়াখালী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৫৭ ২৭ মে ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পটুয়াখালীর গলাচিপায় একটি ক্লাবের নাম ভাঙিয়ে বন বিভাগের ছয়টি বিশাল গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা চেয়ারম্যানের লোকজনের বিরুদ্ধে।

উপজেলা শহর থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরত্বে মঙ্গলবাড়িয়া বাজার সংলগ্ন পকিয়া এলাকায় এসব গাছ কাটা হয়।

এলাকাবাসী অভিযোগে জানান, সম্প্রতি গলাচিপা উপজেলার মঙ্গলবাড়িয়া বাজার সংলগ্ন পকিয়া এলাকায় বন বিভাগের লাগানো ছয়টি গাছ কাটে স্থানীয় শাহজাহান বেপারী, আইউব আলী মৃধা ও জালাল হাওলাদার ও তাদের লোকজন।

এ সময় স্থানীয়রা প্রতিবাদ করলে তাদের জানানো হয়, ওই গাছ বিক্রি করে ক্লাবের ঘর বানানো হবে। পরে এই গাছ নিয়ে যাওয়া হয় গলাচিপা পৌর এলাকার খোকন পালের স-মিলে। পরে নাম ও পরিচয় গোপন রেখে স্থানীয়রা বিষয়টি মৌখিকভাবে বন বিভাগকে জানালে তারা কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। 

স্থানীয়রা আরো জানান, ৩৫ বছর আগে বন বিভাগ কর্তৃকক্ষ ওই গাছগুলো লাগায়। এরইমধ্যে ৭০ হাজার টাকায় কাটা একটি গাছ বিক্রিও করা হয়েছে। বাকি পাঁচটি স-মিলে রয়েছে। ক্লাবটির নাম ভাঙিয়ে ১০ লক্ষাধিক টাকার গাছ উপজেলা চেয়ারম্যান ও তার লোকজন লোপাটের পায়তারা করছেন। 

এ ব্যাপারে শাহজাহান বেপারীর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যানের নির্দেশে আমরা গাছ কেটেছি। আপনি আইউব আলীর সঙ্গে কথা বলেন। 

এ প্রসঙ্গে গলাচিপা পৌর শ্রমিকলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আইউব আলী বলেন, ক্লাব মেরামতের জন্য আমরা গণস্বাক্ষর উঠিয়ে ইউএনও এবং উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে দিলে তারা সুপারিশ করে কর্মকর্তার কাছে পাঠায়। পরে আমরা গাছগুলো কাটি।
  
এ প্রসঙ্গে পকিয়া বিট কর্মকর্তা মশিউর রহমান বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউএনও একটু এড়িয়ে যেতে বলেছে। তাই আমরা একটু এড়িয়ে ছিলাম। একটি ক্লাবের অফিস করার কথা বলেছিল।

দ্বিতীয় দফা তার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষ পর্যন্ত চলে গেছে। এখন আর লুকোচুরির কোনো সুযোগ নেই। আইনগত ব্যবস্থা নেব। তবে জামিন যোগ্য একটি হালকা মামলা দিয়ে দেব। বেশি ঝামেলায় ফেলে লাভ কী। 

গলাচিপা রেঞ্জ কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমি এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলেছি। 

এ প্রসঙ্গে পটুয়াখালী সহকারী বন সংরক্ষক দেব দাস মুখার্জি বলেন, আমি ঘটনাস্থলে আছি। কাটা গাছগুলো উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ