Alexa কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীদের পানির দাবিতে বিক্ষোভ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৬ ১৪২৬,   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীদের পানির দাবিতে বিক্ষোভ

 প্রকাশিত: ১৫:১৫ ২ জুন ২০১৭   আপডেট: ২০:৪১ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পানির সংকট সমাধানের দাবিতে ময়মনসিংহে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সুলতানা রাজিয়া হলের আবাসিক ছাত্রীরা বিক্ষোভ করেছেন। আজ শুক্রবার দুপুরে ছাত্রীরা উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে পানির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেয়। বিক্ষোভকারী কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তিন মাস ধরে পানির সমস্যায় ভুগছেন তারা। কিছুদিন পরপরই তাদের হলে পানির সমস্যা দেখা দেয়। পানি সরবরাহ শুরু হলেও নোংরা ও বালিযুক্ত পানি আসে। হল প্রাধ্যক্ষকে বারবার বিষয়টি জানিয়েও কোনো সুরাহা হয়নি। তারা আরও জানান, গতকাল বৃহস্পতিবারও সকাল নয়টা থেকে হলে কোনো পানি ছিল না। মাঝে কয়েকবার পানি এলেও তা ব্যবহারের উপযোগী ছিল না।

আজ শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত একই অবস্থা চলায় প্রায় ৩০০ ছাত্রী হল থেকে বের হয়ে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে বিক্ষোভ শুরু করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্রীদের বিক্ষোভের কারণে উপাচার্যের বাসভবনের সামনের সড়কে প্রায় তিন ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল। জুমার নামাজ শেষে বেলা দুইটার দিকে উপাচার্য তাঁর বাসভবনে প্রবেশ করতে গেলে ছাত্রীরা উপাচার্যের গাড়ি ভেতরে ঢুকতে দেননি। পরে উপাচার্য অধ্যাপক মো. আলী আকবর গাড়ি থেকে নেমে ছাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় উপাচার্য ছাত্রীদের বলেন, ‘রাস্তা অবরোধ করে আন্দোলন করা ঠিক হচ্ছে না।’ তিনি আরও বলেন, ‘বিষয়টি আগে হল প্রশাসনকে জানানো উচিত।

তারা কোনো পদক্ষেপ না নিলে তোমরা আমাকে জানাতে।’ এ সময় ছাত্রীরা উপাচার্যকে জানান, বারবার হল প্রশাসনকে জানানো হলেও কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। পরে উপাচার্য পানিসংকট সমাধানের আশ্বাস দিয়ে বাসভবনের ভেতরে চলে যান। এদিকে বেলা আড়াইটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগও ছাত্রীদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে। সুলতানা রাজিয়া হলের কয়েক ছাত্রী জানান, তিন মাস ধরে হলে পানির সমস্যা হচ্ছে। বেশ কয়েকবার আন্দোলনও করা হয়েছে। সব সময় হল প্রশাসন ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন পরস্পরের ওপর দায় চাপিয়ে ছাত্রীদের আন্দোলন থেকে নিবৃত্ত করেছে। কিন্তু পরে আবার একই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

এখন রমজান মাসে পানি ছাড়া ছাত্রীরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। সুলতানা রাজিয়া হলের প্রাধ্যক্ষ কাজী শাহানারা আহমেদ এ বিষয়ে বলেন, ‘অনেক দিনের পুরোনো লাইনের জন্য পানির সমস্যা হচ্ছে। আমি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও প্রকৌশল শাখাকে ছয়বার চিঠি দিয়ে সমস্যার বিষয়টি জানিয়েছি। পানির সমস্যা সমাধানে একটু বিলম্ব হচ্ছে।’ এদিকে বেলা তিনটার দিকে উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠক শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম জাকির হোসেন ছাত্রীদের বলেন, শনিবার পর্যন্ত ব্যাংক ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় সমস্যাটি সম্পূর্ণভাবে সমাধান করা যাচ্ছে না। তবে রোববার থেকে পানির সমস্যার সমাধান করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আইজেকে