.ঢাকা, শুক্রবার   ২২ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৮ ১৪২৫,   ১৫ রজব ১৪৪০

কৃষিসেবা বঞ্চিত চরফ্যাসনের চাষিরা

 প্রকাশিত: ১৮:৪০ ২১ জুলাই ২০১৭  

দক্ষিণাঞ্চলের দিকে কৃষকদের অনেককেই দেখা যায় বিভিন্ন ধরনের সবজির চাষ করতে। বর্তমানে অন্যান্য চাষের চেয়ে সবজি চাষটাকেই বেশি লাভবান হিসেবে ধরে নিচ্ছেন কৃষকরা। তাদের চাষকৃত সবজি প্রায় ১২ মাসই কমবেশি পাওয়া যাচ্ছে স্থানীয় বাজারে। উপজেলার কৃষি বিভাগের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের দায়িত্বে অবহেলার কারণে কৃষিসেবা পাচ্ছে না প্রান্তিক চাষিরা। ভোলার চরফ্যাসনের চাষি আলাউদ্দিন জানান, বর্তমানে সবজি চাষে ব্যাপক লাভ পাচ্ছেন অন্যান্য চাষের তুলনায়। প্রায় অনেক বছর ধরেই তিনি আত্মীয়ের পরামর্শে এ চাষ পদ্ধতি শুরু করেন। কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শ ছাড়াই সবজি চাষে লাভবান হয়েছেন। এলাকায় ধিরে ধিরে সবজি চাষ প্রসার হচ্ছে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, চরফ্যাসন উপজেলা হতে একবার কৃষি প্রশিক্ষণ ও সামান্য কিছু সহযোগিতা পেয়েছেন। কয়েক বছর ধরে কৃষি কর্মকর্তা বা মাঠ কর্মীদের কাছ থেকে তিনি সেবা পাচ্ছেন না। বেসকারি ‍ওষুধ কোম্পানির লোকের কাছ থেকে তিনি সঠিক পরামর্শ নিচ্ছেন। এ বিষয়ে চরফ্যাসন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মনোতোষ সিকদার বলেন, প্রথম দিকে কৃষককে সঠিক সময়ে পরামর্শ দিলেও হয়তো পরবর্তিতে কোন কারণে উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তা পরামর্শ দিতে পারেননি। কৃষি কর্মকর্তার সংখ্যা কম থাকার কারণে এই সমস্যাগুলো হচ্ছে। তারা সবসময় মাঠে যেতে পারছেন না। কিন্তু অনেক কৃষকদের কাছে সহজেই পৌঁছতে পারছেন। তিনি কৃষকদের উদ্দেশে বলেন, বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানি তাদের পণ্য বিক্রি করার জন্য পরামর্শগুলো দিয়ে থাকেন, তবে সেগুলো গ্রহণ না করার জন্য জানান এ কর্মকর্তা। এছাড়াও বেশি সমস্যা দেখা দিলে সরাসরি চরফ্যাসন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কার্যালয়ে সমস্যার কথা জানানোর জন্য বলেন। ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই