.ঢাকা, শুক্রবার   ১৯ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ৬ ১৪২৬,   ১৩ শা'বান ১৪৪০

কুড়িগ্রাম হানাদার মুক্ত দিবস আজ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ০০:৫৭ ৬ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ০০:৫৭ ৬ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

আজ কুড়িগ্রাম হানাদার মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর পাক হানাদার বাহিনী ও তাদের দসরদের হটিয়ে কুড়িগ্রামকে শত্রু মুক্ত করে।

এ উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক দলগুলো নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

মুক্তিযুদ্ধে কুড়িগ্রাম ৬ ও ১১ নম্বর সেক্টরের অধীনে ছিল। মুক্তাঞ্চল রৌমারীতে ছিল মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ ক্যাম্প।
 
৬নং সেক্টরের কোম্পানি কমান্ডার আব্দুল হাইয়ের নেতৃত্বে একে একে পতন হতে থাকে পাক সেনাদের শক্ত ঘাঁটিগুলো। মুক্ত হয় ভুরুঙ্গামারী, নাগেশ্বরী, চিলমারী, উলিপুরসহ বিভিন্ন এলাকা।

এরপর পাক সেনারা শক্ত ঘাঁটি গড়ে তোলে কুড়িগ্রাম শহরে। হাই বাহিনী কুড়িগ্রাম শহরকে মুক্ত করতে ৫ ডিসেম্বর পাক সেনাদের চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে। মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণের পাশাপাশি মিত্র বাহিনীর বিমান হামলায় বেসামাল হয়ে পালিয়ে যায় পাক সেনারা। মুক্ত হয় কুড়িগ্রাম।

মুক্তিযোদ্ধাদের স্বাগত জানাতে হাজারো মুক্তিকামী মানুষ সেদিন সমবেত হয়ে বিজয় মিছিলে অংশগ্রহণ করে।

৬নং সেক্টরের সাব কোম্পানি কমান্ডার বীর প্রতীক আব্দুল হাই বলেন, আমরা পাক হানাদার বাহিনীকে চারিদিক থেকে ঘিরে ফেলি। মুক্তিযোদ্ধাদের সাঁড়াশি আক্রমণে হানাদার বাহিনী পিছু হটতে থাকে। পরে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে প্রথমে শহরের ওভারহেট পানির ট্যাংকে প্রথম পতাকা উত্তোলন করেছি। দিনটি স্মরণ করে আনন্দে বুক ভরে যাচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর