Alexa কুষ্টিয়ায় তিনদিন ব্যাপী লালন স্মরণোৎসব 

ঢাকা, বুধবার   ২৪ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৯ ১৪২৬,   ২০ জ্বিলকদ ১৪৪০

কুষ্টিয়ায় তিনদিন ব্যাপী লালন স্মরণোৎসব 

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০২:০৮ ২০ মার্চ ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কুষ্টিয়ার ছেঁউড়িয়ার লালন সাঁইজির আঁখড়াবাড়িতে বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে তিন দিনব্যাপী লালন স্মরণোৎসব। এরই মধ্যে এ উৎসবের সব প্রস্তুতি শেষ করেছে আয়োজকরা। 

দূর-দূরান্ত থেকে আসতে শুরু করেছেন লালন ভক্ত বাউল সাধু-গুরুরা। বুধবার দোল পূর্ণিমার রাতে আখড়াবাড়ির উন্মুক্ত মঞ্চে স্মরণোৎসবের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মোঃ তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী। 

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় এবং কুষ্টিয়া লালন একাডেমির আয়োজনে এ স্মরণোৎসব ও গ্রামীন মেলা চলবে ২২ মার্চ পর্যন্ত। 

এবারের স্মরণোৎসব’র প্রতিপাদ্য দেয়া হয়েছে মরমী সাধক বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁইজির অমর বানী “মনের গরল যাবে যখন, সুধাময় সব দেখবি তখন”। 


প্রথম দিন উদ্বোধনী কুষ্টিয়ার ডিসি মো. আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে স্মরণোৎসবের  উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মো. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী। 
বিশেষ অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক স্থানীয় এমপি মাহবুবউল আলম হানিফ। 

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে আলোচনা করবেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ-আসকারী। 

আলোচনা সভা শেষে উন্মুক্ত মঞ্চে শুরু হবে লালন সঙ্গীত। গাইবেন লালন একাডেমির শিল্পীরাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা খ্যাতনামা বাউল শিল্পী ও ভক্তরা। প্রতিদিন সন্ধ্যায় উন্মুক্ত মঞ্চে বিশিষ্টজনদের মুক্ত আলোচনা শেষে গভীর রাত অবধি চলবে খ্যাতনামা শিল্পীদের পরিবেশনায় লালন সঙ্গীতানুষ্ঠান। 

কুষ্টিয়ার ডিসি মো. আসলাম হোসেন বলেন, লালন স্মরণোৎসব ও গ্রামীন মেলা উপলক্ষে মাজার প্রাঙ্গণ ও তার আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। পুরো এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। জেলা পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকে আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। সে সঙ্গে দায়িত্বে থাকবে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ