.ঢাকা, শনিবার   ২৩ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৮ ১৪২৫,   ১৬ রজব ১৪৪০

জাবিতে দেশসেরা পদার্থবিজ্ঞানী

জাবি প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৬:০৪ ৯ নভেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৬:০৪ ৯ নভেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

আরজি-স্কোর অনুযায়ী দেশসেরা পদার্থবিজ্ঞানী নির্বাচিত হয়েছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন। ৪৪ দশমিক ৯৭ পয়েন্ট নিয়ে সর্বোচ্চ অবস্থানে জাবির এই অধ্যাপক।

অধ্যাপক ড. এ এ মামুন ১৯৬৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। এসএসসি, এইচএসসিতে প্রথম বিভাগ পেয়ে ভর্তি হন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে। এখানে বিএসসি এবং এমএসসিতে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হন। এমএসসিতে সব বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে বেশি নম্বর পেয়েছিলেন তিনি। এরপর ১৯৯৩ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে প্রভাষক পদে যোগ দেন।

একই বছর সেপ্টেম্বরে কমনওয়েলথ স্কলারশিপ নিয়ে ব্রিটেনের সেন্ট অ্যান্ডুজ ইউনিভার্সিটিতে পিএইচডি করতে যান। সেখান থেকে তিনি প্লাজমা পদার্থবিজ্ঞানের উপর পিএইচডি লাভ করেন।

মামুন পরবর্তীতে জার্মানি এবং যুক্তরাজ্য থেকে পোস্ট ডক্টরাল অধ্যয়ন করেন। দেশে ফিরে তিনি নিজ বিভাগে যোগ দেন।

দুই শতাধিক গবেষণামূলক নিবন্ধ প্রকাশ করেন তিনি। ইন্সটিটিউট অব ফিজিক্স (লন্ডন) ডাস্টি প্লাজমার উপর তার বই প্রকাশ করে। ২০১৩ সালে ৩৯টি, ২০১৪ সালে ৩৮টি ও পরের বছর আন্তর্জাতিক জার্নালগুলোয় তাঁর ৪৪টি গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়। দেশের সবচেয়ে বেশি গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশের স্বীকৃতি হিসেবে ড. এ এ মামুন ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে সায়েন্টিফিক বাংলাদেশের ‘সায়েন্টিফিক পাবলিকেশন উইথ বাংলাদেশ অ্যাফিলেশন ইন ২০১৫’ জরিপে পর পর তিন বছর ‘বর্ষসেরা গবেষক’ নির্বাচিত হন।

২০০৪ সালে বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি থেকে তিনি পদার্থবিজ্ঞানে স্বর্ণপদক (জুনিয়র), ২০১১ সালে বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমী কর্তৃক স্বর্ণপদক (সিনিয়র) এবং ২০০৯ সালে আলেকজান্ডার ভন হামবোল্ডট ফাউন্ডেশন থেকে ফ্রেডরিখ উইলহেম বিসেল রিসার্চ সম্মাননা লাভ করেন।

আরজি স্কোর অনুযায়ী প্রথম দশ পদার্থবিজ্ঞানীর মধ্যে ৩৭ দশমিক ৬১ পয়েন্ট নিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সালেহ হাসান নকীব ২য়, ৩৬ দশমিক ৬১ পয়েন্ট নিয়ে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের এমিরেটাস অধ্যাপক অরুন কুমার বসাক ৩য়, ৩৫ দশমিক ১৯ পয়েন্ট নিয়ে বুয়েটের অধ্যাপক একেএম আখতার হুসাইন ৪র্থ, ৩৫ দশমিক ১৭ পয়েন্ট নিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক একেএম আজহারুল ইসলাম ৫ম, ৩৪ দশমিক ৫১ পয়েন্ট নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এম ইদ্রিস মিয়া ৬ষ্ট, ৩১ দশমিক ১২ পয়েন্ট নিয়ে বুয়েটের অধ্যাপক জীবন পোদ্দার ৭ম, ৩০ দশমিক ০৯ পয়েন্ট নিয়ে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ফরহাদ মিনা ৮ম, ২৯ দশমিক ৯৮ পয়েন্ট নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক একেএম মইনুল হক মিয়াজ ৯ম এবং ২৯ দশমিক ৯৩ পয়েন্ট নিয়ে বুয়েটের অধ্যাপক আবু হাসান ভূঁইয়া ১০ম অবস্থানে রয়েছেন।

এছাড়া তরুণ গবেষকদের মধ্যে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়য়ের ড. শারমিন সুলতানার স্কোর ২৯ দশমিক ১৬, বুয়েটের প্রফেসর মোহাম্মদ আব্দুল বাসিতের স্কোর ২৮ দশমিক ০৬ এবং নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মাহদি রহমান চৌধুরীর স্কোর ২৭ দশমিক ০৭।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ