Alexa কিডনির ইনফেকশন থেকে রক্ষা মিলবে পাঁচ উপায়ে

ঢাকা, শুক্রবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ৮ ১৪২৬,   ২৬ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

কিডনির ইনফেকশন থেকে রক্ষা মিলবে পাঁচ উপায়ে

জান্নাতুল মাওয়া সুইটি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:৫৮ ২৮ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১২:২৮ ২৮ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

জীবনযাত্রায় অনিয়ম ও পর্যাপ্ত পানি পানের অভাবেই কিডনির সমস্যায় ভুগতে হয় অনেকের। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ৮৫০ মিলিয়ন মানুষ কিডনির বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছেন। বিষয়টি খুবই উদ্বেগজনক আকার ধারণ করছে। 

তবে প্রথম অবস্থায় কিডনির ইনফেকশন (সংক্রমণ) শনাক্ত করা গেলে অন্তত কিডনি বিকল হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। প্রথমে ইউরেনারি ট্র্যাক ইনফেকশন (মূত্রনালির সংক্রমণ) এবং পরে গলব্লাডার ইনফেকশনের (পিত্তাশয়ে সংক্রমণ) প্রভাব পড়ে দু’টো কিডনিতেই। যদি আপনার কিডনিতে ইনফেকশন হয়েই থাকে তবে নিশ্চিন্তে কিছু ঘরোয়া উপায়ের মাধ্যমে তা সারাতে পারবেন। 

এবার তবে জেনে নিন কিডনি ইনফেকশনের লক্ষণসমূহ-

জ্বর, পিঠে বা যে কোনো এক পাশে ব্যথা, পেটে ব্যথা, মাথা ঘোরা, বমি ভাব, প্রস্রাবে জ্বালা পোড়া ও পরিমাণে কম হওয়া, প্রসাবের রং গাঢ় হয় ও গন্ধ থাকে এবং মাঝে মাঝে প্রস্রাবের সঙ্গে রক্তও যেতে পারে। যদি এসব লক্ষণ প্রকাশ পায় তবে দেরি না করে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। পাশাপাশি ঘরোয়াভাবেও কিডনির স্বাস্থ্য ভালো রাখতে নিম্নোক্ত উপায়গুলো মানতে পারেন-

১. প্রচুর পানি পান করতে হবে। এক কথায় পানির কোনো বিকল্প নেই সুস্থ থাকতে। এতে কিডনির সংক্রমণ থেকে ক্রমশ নিস্তার পাবেন। এছাড়াও প্রস্রাব বেশি হওয়ায় জ্বালা পোড়া ও গন্ধও আর হবে না। প্রতিদিন অন্তত আট গ্লাস করে পানি পান করুন।

২. ক্র্যানবেরির জুস নিয়মিত খেলে প্রস্রাবের সংক্রমণ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। চিকিৎসাবিজ্ঞানে প্রমাণিত যে, ক্র্যানবেরির রস মূত্রনালির সংক্রমণের উপশম ঘটায়। এতে কিডনির সংক্রমণ ক্রমশ কমে যায়।

৩. কফি ও অ্যালকোহলমুক্ত রাখুন নিজেকে। কিডনি শরীরের এক ছাঁকনি হিসেবে কাজ করে। শরীর থেকে সমস্ত টক্সিন দূর করে কিডনি। তবে কফি ও অ্যালকোহল পান করলে কিডনির ইনফেকশন আরো বাড়বে। এছাড়াও অ্যান্টি-বায়োটিকের সঙ্গে অ্যালকোহলের সমন্বয় ঘটে না কখনো। এজন্য এটি স্বাস্থের জন্য ক্ষতিকর।

৪. আপেল ও এর জুস নিয়মিত পান করলে কিডনির ইনফেকশন থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব। প্রতিদিন একটি আপেল খেলে সব রোগ থেকে মুক্তি মেলে, এটি নিশ্চয় জানেন! কারণ এতে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদানসমূহ। যা বিভিন্ন রোগের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে।

৫. ব্যথার ওষুধ না খেয়ে বরং যে স্থানে ব্যথা সেখানে গরম সেঁক দিতে হবে। এতে ব্যথা থেকে মুক্তি পাবেন। ব্যথার ওষুধ খেলে এর ক্ষতিকর প্রভাবে আবারো কিডনির সংক্রমণ বাড়তে পারে। কিছুক্ষণের জন্য ব্যথা কমালেও এসব ওষুধ স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এজন্য ঘরোয়া উপায়ে কিডনির সংক্রমণ থেকে বাঁচতে এসব উপায় মেনে চলুন।

অ্যাপেল সিডার ভিনেগার কি পারে এই সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে?

এতে রয়েছে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদানসমূহ। যা শরীরের ক্ষতিকর ব্যকটেরিয়াকে ধ্বংস করতে পারে। এক্ষেত্রে প্রতিদিন দুই চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার এক গ্লাস পানির সঙ্গে মিশিয়ে পান করুন। দিনে অন্তত একবার খাওয়ার পূর্বে এই পানীয়টি পান করুন। 

সুত্র: হেলথলাইন

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস