Alexa কাভার্ডভ্যানের গ্যাসে চলছে গাড়ি

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ২ ১৪২৬,   ১৭ মুহররম ১৪৪১

Akash

কাভার্ডভ্যানের গ্যাসে চলছে গাড়ি

এম.আর সুমন, রায়পুর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:১৫ ১৯ আগস্ট ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

লক্ষ্মীপুরে দিন দিন বাড়ছে কাভার্ডভ্যানে তৈরি ভ্রাম্যমাণ সিএনজি স্টেশনের সংখ্যা। রামগঞ্জের পর এবার রায়পুরের কয়েকটি স্থানে দেখা গেছে এসব অবৈধ সিএনজি স্টেশন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, ঝুকিপূর্ণ এ ব্যবস্থায় কাভার্ডভ্যানের ভেতর গ্যাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণে যেকোনো সময় ঘটতে পারে মারাত্মক দুর্ঘটনা। তাই দ্রুত অবৈধ সিএনজি স্টেশন বন্ধের দাবি তাদের।

সরেজমিন দেখা গেছে, ঢাকা-রায়পুর আঞ্চলিক মহাসড়কের সিংহের পুলে ১৫ দিন ধরে একটি কাভার্ডভ্যান থেকে প্লাস্টিকের পাইপ দিয়ে বিভিন্ন যানবাহনে গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে। এখান থেকে গ্যাস নিচ্ছে এ সড়কে চলাচলকারী শত শত যানবাহন।
 
অটোচালক সেলিম উদ্দিন বলেন, বৈধ সিএনজি স্টেশনে প্রতিলিটার গ্যাস বিক্রি হয় ৪১ টাকা টাকায়। আর কাভার্ডভ্যানে বিক্রি হচ্ছে ৫২ টাকায়। লিটারে ১১ টাকা বেশি নিলেও ভ্রাম্যমাণ এসব সিএনজি স্টেশনের নেই ফায়ার সার্ভিসের অনুমতি কিংবা বিস্ফোরক লাইসেন্স।

অবৈধ এসব সিএনজি স্টেশন পরিচালনা করে স্বদেশ গ্লোরী অ্যাগ্রো প্রোডাক্টস সিবিজি নামের একটি কোম্পানি। এ কোম্পানির পরিচালক মুজিবুর রহমান বলেন, কাভার্ডভ্যানের মাধ্যমে সড়কে চলাচলকারী সিএনজি অটোরিকশা ও গ্যাসচালিত অন্যান্য যানবাহনগুলো দ্রুত গ্যাস নিতে পারে। মানুষের উপকারের জন্যই আমরা এ ব্যবস্থা করেছি।

রায়পুর পৌরসভার মেয়র ইসমাইল খোকন বলেন, ঢাকা-রায়পুর একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। সড়কের পাশে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। কাভার্ডভ্যানে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হলে যেকোনো সময় মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। অবৈধ এসব সিএনজি স্টেশন বন্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

রায়পুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, কাভার্ডভ্যানের মাধ্যমে গ্যাস বিক্রির জন্য আমরা কাউকে অনুমোদন দেইনি। এ ধরনের সিএনজি স্টেশন সম্পূর্ণ অবৈধ। বিষয়টি নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রায়পুরের ইউএনও শামীমা বাবু শান্তি বলেন, আমরা কোনো প্রতিষ্ঠানকে ভ্র্যাম্যমাণ সিএনজি স্টেশন চালুর অনুমতি দেইনি। শিগগিরই অভিযান চালিয়ে এসব স্টেশন বন্ধ করা হবে। রাষ্ট্রীয় সম্পদ গ্যাস কেউ অবৈধভাবে ব্যবহার করতে পারবে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর