Alexa হাড় দিয়ে যে হেডফোনে শোনা যাবে গান!

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৬,   ১২ রবিউস সানি ১৪৪১

হাড় দিয়ে যে হেডফোনে শোনা যাবে গান!

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:০২ ১৩ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৫:০৭ ১৩ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় নানা ক্ষেত্রে অনেক পরিবর্তন হয়েছে। গান শোনার মাধ্যম হিসেবে যন্ত্রেরও হয়েছে ব্যাপক পরিবর্তন। সময়ের আবর্তে ক্যাসেটের গান সিডি থেকে মেমরি কার্ডে আর বড় ক্যাসেট প্লেয়ার থেকে আইপড। এখন স্মার্টফোনেও শোনা যায় গান। তবে গান শুনতে হেডফোনের ব্যবহার এখনো এতটুকু কমেনি। 

সমীক্ষায় দেখা গেছে, জোরে গান শোনার ফলে মানুষের শ্রবণশক্তি হ্রাস পায়। এবার হেডফোনের ক্ষেত্রেও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। এবার গান কানের মধ্যে দিয়ে নয়, বরং কানের পাশের হাড়ের মাধ্যমে শোনা যাবে। 

আফটারশকজ ২০১৬ থেকেই এ ধরনের হেডফোন তৈরি করছে। এগুলি দেখতে ব্লুটুথ হেডফোনের মতোই। কিন্তু কানে পরলেই বুঝতে পারবেন বাকি সমস্ত হেডফোনের মতো কানের মধ্যে এই হেডফোন ঢুকে যায় না। বরং কানের ঠিক সামনেই এঁটে লেগে থাকে এই হেডফোন।

এই হেডফোনের আওয়াজ অন্যগুলো থেকে কিছুটা আলাদা। এর রেঞ্জ ২০ কিলোহার্টজ থেকে ২০ হাজার কিলোহার্টজ পর্যন্ত। এই রেঞ্জ আমাদের সর্বাধিক শ্রবণ ক্ষমতার সমান। সাধারণত ভালো হেডফোনের ক্ষেত্রে এই রেঞ্জ ৪ কিলোহার্টজ থেকে শুরু হয়। কিছুটা সতর্কতার সঙ্গে এটি ব্যবহার করলে সাধারণ হেডফোনের থেকে এর ক্ষতি অনেকটাই কমবে। অনেক সময় চুপচাপ কোনো জায়গায় হেডফোনে গান শুনলে তার আওয়াজ পাশের লোকজন শুনতে পায়। কিন্তু এখানে সে সুযোগ নেই।

বর্তমানে ৪টি মডেল বাজারে এসেছে। এগুলোর দাম ৫ হাজার থেকে ১২ হাজার টাকা পর্যন্ত। এই দামে বাজারে এমনিতে যে হেডফোন পাওয়া যাবে, তার আওয়াজ এই হেডফোনের থেকে ভালো হবেই। কিন্তু নতুন ভাবে শোনার অনুভূতি পেতে হলে, আফটারশকজ এই মুহূর্তে বাজারের অন্যতম সেরা।

এছাড়া এই হেডফোনে ওয়েদার শিল্ড প্রযুক্তি রয়েছে। এর ফলে ধুলো-বৃষ্টি কোনো কিছুতেই এর ব্যবহারে সমস্যা নেই। এতে ঘামতে ঘামতে জিম হোক কিংবা রাস্তায় চলতে চলতেও যথেচ্ছ ব্যবহার করতে পারবেন। এমনকি গাড়ি চালাতে চালাতে ব্যবহার করলেও আইন এবং সুরক্ষার দিক থেকে সম্পূর্ণ নিরাপদ, কারণ এতে আপনার কান থাকে একদম খোলা। বাইরের সমস্ত আওয়াজ শুনতেও থাকবে না কোনো বাধা।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর