Alexa কানাডায় সাধারণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

ঢাকা, সোমবার   ১৮ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৩ ১৪২৬,   ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

কানাডায় সাধারণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:৩০ ২১ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ২৩:৩২ ২১ অক্টোবর ২০১৯

কানাডায় ৪৩তম জাতীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর নেতৃত্বাধীন লিবারেল পার্টিকে দেশবাসী দ্বিতীয় দফা সরকার গঠন করতে দেবেন কি না, সে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে আজ। সোমবার স্থানীয় সময় সকাল থেকে এই ভোট গ্রহণ শুরু হয়।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, ভোটে অংশগ্রহণকারী দলগুলো পাঁচ সপ্তাহ ধরে নিজেদের প্রার্থীদের পক্ষে ভোটাদের কাছে প্রচারণা চালিয়েছে। এ সময় প্রতিপক্ষকে বাক্যবাণে জর্জরিত করতেও পিছপা হয়নি দলগুলো। 

কানাডাভিত্তিক গবেষণা ও জরিপকারী প্রতিষ্ঠান ন্যানোস রির্সাচ জানাচ্ছে, এবারের নির্বাচনে ট্রুডোর লড়াইটা মূলত প্রতিপক্ষ কনজারভেটিভ দলের নেতা অ্যানডরু শিবের সঙ্গে। 

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গণমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, প্রাক নির্বাচনী জরিপে দেখা গেছে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে জনগণের পছন্দের পাল্লাটি দু’জনের ক্ষেত্রে রয়েছে। ঠিক সাম্যবস্থায়। তাই কানাডার পার্লামান্টের নেতৃত্ব কে দেবেন, তার নিশ্চিত রায় আগে থেকে দেয়া যাচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে ন্যানোস রিসার্চের কর্ণধার নিক ন্যনোস বলেন, যদি জনগণের ভাষায় এবারের নির্বাচনকে একবাক্যে বর্ণনা করতে হয় তাহলে বলতে হবে, সিদ্ধান্তহীন ২০১৯।

বিভিন্ন জরিপ ও গুগল সার্চ থেকে জানা গেছে, এবার নির্বাচনে কানাডাবাসীর কাছে যে ইস্যুগুলো সবচেয়ে বেশি প্রধান্য পাচ্ছে সেটি হলো স্বাস্থ্যসেবা। এছাড়াও রয়েছে ট্যাক্স, শিক্ষা ও গাঁজার ব্যবহার বৈধকরণের মতো ইস্যুগুলোও। 

কনজারভেটিভ দলের নির্বাচনী প্রচারণায় ট্যাক্স কমানোর বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। তবে বেশিরভাগ ভোটারই মনে করেন, শির জলবায়ু বিষয়টিকে অন্য প্রার্থীদের তুলনায় কম প্রাধান্য দেবেন।

তবে এবারের নির্বাচনে জোরালোভাবে কোনো একক ইস্যুকে তুলে ধরতে ব্যর্থ হয়েছেন প্রার্থীরা। তাই এ নির্বাচকে ‘ইস্যুবিহীন নির্বাচন’ বলছেন অনেকেই। আর এ কারণে নির্বাচন বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, কোনো একজন প্রার্থীই নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে যেতে পারেন।

কানাডা জুড়ে ৩৩৮ আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ভোটের ফল ঘোষণা হবে স্থানীয় সময় সোমবার রাত ৮টায়। সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট পেয়ে সরকার গঠন করতে হলে কোনো একটি দলকে কমপক্ষে ১৭০ টি আসন জয়লাভ করতে হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ