Alexa কাঠবিড়ালি মেরে চেয়ারম্যানের উল্লাস, ফেসবুকে নিন্দার ঝড়

ঢাকা, রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৭ ১৪২৬,   ২২ মুহররম ১৪৪১

Akash

কাঠবিড়ালি মেরে চেয়ারম্যানের উল্লাস, ফেসবুকে নিন্দার ঝড়

নিউজ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:২৬ ১৫ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ১১:২৯ ১৫ আগস্ট ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার চিকনাগুল ইউপির চেয়ারম্যান এবিএম জাকারিয়া, নিজ হাতে মেরেছেন বিরল ও বিপন্ন প্রজাতির পাঁচটি কাঠবিড়ালি। একজন জনপ্রতিনিধির এমন আচরণে সদ্য পাশ হওয়া প্রাণিকল্যাণ আইনে বিচার চেয়েছেন প্রাণীপ্রেমী ও পরিবেশবাদীরা।

বুধবার সকাল আটটার দিকে তিনি পাঁচটি কাঠবিড়ালিকে পিটিয়ে মারেন। এ ঘটনার পর নিজের ফেসবুকে পোস্ট দেন এবং উল্লাস প্রকাশ করেন।

গর্বের সঙ্গে লিখেন- “সুপারি, মাত্তু, পেয়ারা, কলা, লেবু, আনারস সহ অন্যান্য মৌসুমি ফসলের প্রধান বিনষ্টকারী “কটা” ৫ জন আজ বাদ ফজর থেকে সকাল ৮.০০ এার মধ্যে শহীদ হন!!! একজন গুরুতর আহত অবস্থায় মাটিতে পড়েই বনের মধ্যে নিখোঁজ হয়ে যান। ৪ জন সমাহিত। একজন গুরুতর আহত অবস্থায় মাটিতে পড়েই বনের মধ্যে নিখোঁজ হয়ে যান। ৪ জন সমাহিত।” ইউপি চেয়ারম্যান এবিএম জাকারিয়া ফেসবুক পোস্ট এটি।

সম্প্রতি প্রাণী হত্যায় দেশে আইন পাশ হয়েছে। এরইমধ্যে একজন জনপ্রতিনিধির প্রাণী হত্যার বিচার চেয়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়েছেন প্রাণী প্রেমীরা।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপার সিলেট বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম বলেন, ‘হত্যাকারী একজন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান| দেশে যদি বন্যপ্রাণী সুরক্ষা আইন করা হয়ে থাকে, তবে সে আইনের প্রয়োগ দেখতে চাই| একজন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের যদি দেশের আইনকানুন সম্পর্কে ধারণা না থাকে, তবে সাধারণ মানুষকে কি বলবো?’

পিপিল ফর ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা স্থপতি রাকিবুল হক এমিল বলেন, একজন জনপ্রতিনিধির এমন আচরণ আশংকাজনক। আইনের শতভাগ প্রয়োগ করে এই শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। কর্তৃপক্ষকে প্রমাণ করতে হবে আইন শুধু কাগজে কলমে নয়, বাস্তবেও প্রয়োগ হচ্ছে।

সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এসএম সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আমি এই মাত্র শুনলাম লোক পাঠিয়ে খবর নিচ্ছি। সত্যতা পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ