Alexa ‘কলেজ শিক্ষকদের নিয়ে শিগগিরই আইসিটি ট্রেনিং’

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১৪ ১৪২৬,   ০৩ রজব ১৪৪১

Akash

‘কলেজ শিক্ষকদের নিয়ে শিগগিরই আইসিটি ট্রেনিং’

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫৩ ২৯ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৪:৫৪ ২৯ জানুয়ারি ২০২০

ছবিঃ ডেইলি বাংলাদেশ

ছবিঃ ডেইলি বাংলাদেশ

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ বলেছেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সব কলেজ শিক্ষকদের নিয়ে খুব শিগগিরই বিশেষ আইসিটি ট্রেনিং প্রোগ্রাম করা হবে। পাশাপাশি সব কলেজগুলোকে আইসিটি কানেকটিভিটির আওতায় নিয়ে আসা হবে। এই উদ্যোগ শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিতে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।  

বুধবার গাজীপুরে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসে সিইডিপির দশম ব্যাচের শিক্ষক প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের সমাপনী ও সনদ বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। 

সরকারের শিক্ষাখাতে বিশেষ অ্যাটেনশন দেয়ার বিষযটি উল্লেখ করে উপাচার্য বলেন, দেশের সার্বিক শিক্ষার মান উন্নয়ন করতে হলে শিক্ষাখাত ঢেলে সাজাতে হবে। গবেষণার সুযোগ সৃষ্টি  করতে হবে। প্রায়োগিক অর্থেই এই খাতে বিশেষ অ্যাটেনশন দিতে হবে। কারণ উন্নয়ন এবং পরিবর্তন অবশ্যই সম্ভব তবে সেটা মনেপ্রাণে চাইতে হবে। 

উপাচার্য বলেন, দেশের শিক্ষাখাতের গুণগত মান উন্নত করতে হলে কোনো ধরনের চাওয়া পাওয়া ছাড়া নিবেদিত প্রাণ হয়ে শিক্ষকদের শিক্ষাদান করতে হবে। কোন ধরনের ইনসেনটিভের স্বপ্নে বিভোর হওয়া যাবে না। বেশি বেশি পড়াশোনা এবং গবেষণা করে নিজেদেরকে যোগ্যতম হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। শুধু পাঠদান নয়, শিক্ষকদের জ্ঞান সৃষ্টি করতে হবে এবং এই সৃষ্টিকে উপভোগ করতে হবে। তানাহলে প্রকৃত শিক্ষক হওয়া যাবে না। শিক্ষকতা শুধু একটি পেশা নয়। এটি কমিটমেন্টও।

বিশ্ববিদ্যালয় স্নাতকোত্তর শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত ডিন প্রফেসর ড. মো. আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান, কোর্স উপদেষ্টা অধ্যাপক  এস. আমিনুল ইসলাম (সমাজবিজ্ঞান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়), অধ্যাপক ড. ফখরুল আলম (ইংরেজি বিভাগ, ইউজিসি অধ্যাপক), প্রফেসর ড. মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন (অর্থনীতি বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়), প্রফেসর রাখা হারি সরকার, (উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়)। অনুষ্ঠান শেষে দশম ব্যাচের শিক্ষক প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী ১৩৯ জন শিক্ষকের হাতে সনদ তুলে দেন উপাচার্য। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম