করোনা মুক্তির জন্য হু’র মহাপরিচালকের পরামর্শ, না জানলে ঝুঁকি!

ঢাকা, শুক্রবার   ১০ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ২৬ ১৪২৭,   ১৮ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

করোনা মুক্তির জন্য হু’র মহাপরিচালকের পরামর্শ, না জানলে ঝুঁকি!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১৯ ২৭ মে ২০২০   আপডেট: ১৮:২৬ ২৭ মে ২০২০

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ডা. টেডরস আডহানম গেব্রেসাস

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ডা. টেডরস আডহানম গেব্রেসাস

চীনের উহান থেকে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া মারাত্বক প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) তাণ্ডবে প্রতিদিন আক্রান্ত হচ্ছেন মানুষ। একই সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। তবে ভাইরাসটি থেকে সুস্থ হচ্ছেন অসংখ্য মানুষ। মূলত সুস্থ হওয়া লোকদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি। তাই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও সচেতনতা বাড়িয়ে করোনা থেকে মুক্তি পেতে পাঁচটি পরামর্শ দিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ডা. টেডরস আডহানম গেব্রেসাস।

সবুজ শাকসবজি গ্রহণ: 

সবুজ শাকসবজি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। সব ধরণের রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে থাকে। শরীরের সব অঙ্গে শক্তির উৎস প্রদান করে সবুজ শাকসবজি। 

অ্যালকোহল পান ও চিনিযুক্ত পানীয় গ্রহণে সতর্কতা: 

অ্যালকোহল বা চিনিযুক্ত পানীয় শরীরের রোগ প্রতিরোধের কার্যক্ষমতা কমিয়ে দেয়। সুতরাং আপনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে এগুলো পরিহার করুন।

ধূমপান বর্জন করুন: 

ধূমপান আপনার শরীরের থাকা ভয়ানক সব রোগকে আরো বিপদজ্জনক করে তুলে। আপনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে শরীরের থাকা রোগগুলোকে উসকে দেয় ধূমপান। 

ব্যায়াম:

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ বা মুক্ত হওয়ার অন্যতম শক্তি হিসেবে কাজ করে ব্যয়াম। বিশ্ব স্বাস্থ্য প্রাপ্ত বয়স্কদের প্রতিদিন আধা ঘণ্টা শারীরিক ব্যয়াম করতে পরামর্শ দেয়। আর শিশুদের প্রতিদিন এক ঘণ্টা শারীরিক কার্যক্রম করতে বলে। 

যদি আপনার অঞ্চল বা দেশ বাইরে যাওয়ার সুযোগ দেয়, তবে আপনি বাইরে গিয়ে হাঁটুন, দৌড়ান এবং সাইকেল বা ঘোড়া চড়ুন। একই সঙ্গে অপর মানুষ থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন। যদি আপনি বাড়ির বাইরে যেতে না পারেন, আপনি অনলাইনের ঘরে বসে ব্যয়ামের ভিডিও পাবেন। আপনি ঘরে বসে মিউজিকের সঙ্গে নাচতে পারেন। ইয়োগা এবং সিঁড়িতে উঠানামা করতে পারেন। 

আপনি যদি বাসায় কাজ করেন তাহলে সতর্ক থাকুন। দীর্ঘ সময় একই আসনে বসে কাজ করা থেকে বিরত থাকুন। ৩০ মিনিট অন্তর আপনি তিন মিনিট সময় ব্রেক নিন।

মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর লক্ষ্য রাখুন

যেকোনো মহামারিতে মানসিক দুশ্চিতা, ভয় স্বাভাবিক বিষয়। আপনি তাদের সঙ্গেই কথা বলুন যাদের আপনি চেনার পাশাপাশি বিশ্বাস করেন। আপনার কমিউনিটিতে থাকা লোকদের সহায়তায় এগিয়ে আসুন। প্রতিবেশী, পরিবার ও বন্ধুদের খবর নিন। 

আবেগকে ওষুধ হিসেবে কাজে লাগানো যায়। গান শুনুন, বই পড়ুন, গেম খেলুন। বারবার সংবাদ দেখা থেকে বিরত থাকুন। কারণ এটি আপনাকে বেশি দুশ্চিতায় ফেলে দেবে। নির্ভরযোগ্য উৎস থেকে দুইদিন পরপর তথ্য সংগ্রহ করুন। 

করোনাভাইরাস আমাদের কাছ থেকে অনেক কিছু কেড়ে নিচ্ছে। তবে আমাদের মাঝে বিশেষ কিছু জাগ্রত করছে। আমাদের একসঙ্গে কাজ ও ঘুরে দাঁড়ানোর শিক্ষা দিচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ