করোনা: মহাখালীতে হচ্ছে এক হাজার শয্যার আইসোলেশন সেন্টার
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=191570 LIMIT 1

ঢাকা, শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭,   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

করোনা: মহাখালীতে হচ্ছে এক হাজার শয্যার আইসোলেশন সেন্টার

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৩৩ ২ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৭:৫১ ২ জুলাই ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে তৈরি হচ্ছে এক হাজার শয্যার একটি আইসোলেশন সেন্টার। এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে আছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

মার্কেটের পঞ্চম তলা পর্যন্ত এক হাজার শয্যার আইসোলেশন সেন্টার এবং ষষ্ঠ তলায় নির্মিত হচ্ছে ৫০টি আইসিইউ সম্বলিত ৩০০ শয্যার বিশেষায়িত হাসপাতাল।

জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহে সেবাদান শুরুর আশা ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলামের।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন মহাখালীতে তৈরি করে ডিএনসিসি মার্কেট। কিন্তু গত কয়েকবছর পড়ে থাকার পরও চালু হয়নি সেটি। সেই পড়ে থাকা ভবনেই এবার তৈরি হলো করোনা চিকিৎসার এ আইসোলেশন সেন্টার। 

সিদ্ধান্ত নেয়ার সপ্তাহখানেক পরই কাজ এগিয়েছে অনেকটা। তবে মার্কেটের কাঠামো হওয়ায় জটিলতাও ছিল বেশ।দোকানগুলোকে তৈরি করা হয়েছে কেবিন হিসেবে আর খোলা জায়গাগুলো তৈরি হয়েছে ওয়ার্ড হিসেবে। 

ভবনের পাঁচ তলা পর্যন্ত আইসোলেশন সেন্টারের দায়িত্বে রয়েছেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জুবাইদুর রহমান। আর ৬ষ্ঠ তলায় ৫০টি আইসিইউসহ ৩০০ শয্যার বিশেষায়িত হাসপাতাল তৈরি হচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, আইসোলেশন সেন্টার ও হাসপাতালের জন্য এরইমধ্যে নেয়া হয়েছে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা। সেখানে সব সুবিধা থাকবে যেমন বেড, অক্সিজেন, অন্যান্য চিকিৎসা থাকবে এবং এটা আর্মি ম্যানেজমেন্টে থাকবে।

তিনি বলেন, আমরা ডাক্তার ও নার্স দেবো। আর যা দেয়ার দরকার তা অলরেডি দিয়ে দেয়া হয়েছে।

বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে পাঠানো করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হবে এই আইসোলেশন সেন্টারে। অবস্থার অবনতি হলে রোগীকে স্থানান্তর করা হবে হাপাতালে।

এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, করোনা রোগীদের জন্য টেলিমেডিসিনের ব্যবস্থা শুরু করতে পারি কি না সেজন্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জুবাইদুর রহমানকে বলা হয়েছে। ইনশাল্লাহ জুলাই মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে এই হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু করতে পারবো।

জানা গেছে, সদ্য নিয়োগ পাওয়া দুই হাজার চিকিৎসকের ৮২ জন এখানেই প্রথম কাজ শুরু করবেন।

সদ্য নিয়োগ পাওয়া এক ডাক্তার বলেন, করোনায় সারাবিশ্বই আক্রান্ত। সেখানে বাংলাদেশও ক্যান্তিকাল পার করছে। এই অবস্থায় সরকারি কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়ে আমরা খুবই আনন্দিত।  

আরো জানা গেছে, এই সেন্টারে চিকিৎসা সেবা দিতে নিয়োগ পেয়েছেন শতাধিক নার্স।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএএম