করোনা পরীক্ষার নামে গৃহবধূকে গলাটিপে ধরে নার্স

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১৪ ১৪২৭,   ১১ সফর ১৪৪২

করোনা পরীক্ষার নামে গৃহবধূকে গলাটিপে ধরে নার্স

নওগাঁ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:২৭ ৮ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৯:০৫ ৯ আগস্ট ২০২০

গৃহবধূকে হত্যার চেষ্টায় ভুয়া নারী স্বাস্থ্যকর্মী আটক

গৃহবধূকে হত্যার চেষ্টায় ভুয়া নারী স্বাস্থ্যকর্মী আটক

নওগাঁর রানীনগরে করোনাভাইরাসের নমুনা সংগ্রহের নামে গৃহবধূকে গলাটিপে হত্যার চেষ্টায় ভুয়া এক নারী স্বাস্থ্যকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার দুপুরে উপজেলার মিরাট ইউপির আতাইকুলা পাল পাড়া গ্রামে অভিনব কায়দায় গৃহবধূ প্রতিমা রানীকে গলা টিপে হত্যার চেষ্টা করে আটক বর্ণা। 

এ সময় প্রতিমা রানীর স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। প্রতিমার করোনাভাইরাস আছে এমন কথা বলে তার দুই কপি ছবি ও ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি দিতে বলেন। 

গৃহবধূ স্বামীর বড় ভাইকে ভোটার আইডি কার্ড ফটোকপির করার জন্য বাজারে পাঠায়। এ সুযোগে বর্ণা গলাটিপে হত্যার চেষ্টা করে প্রতিমার। ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে গৃহবধূর চিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এলে বর্ণা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে পালানোর চেষ্টা করে। পরে গ্রামবাসীরা তাকে আটক করে। 

এ সময় বর্ণার ব্যাগে দুটি হ্যান্ড গ্লাভস, কেরোসিন তেল ভর্তি একটি বোতল, গ্যাস লাইট, সুপার গ্লুৃ আঠা ছিলো বলে জানা যায়। 

রানীনগর থানার ওসি জহুরুল হক বলেন, বর্ণা একই উপজেলার বেতগাড়ী গ্রামের গোবিন্দ পালের মেয়ে। গৃহবধূ প্রতিমা রানীর ভাইয়ের স্ত্রী ছিলেন বর্ণা। গত ৭/৮ বছর আগে তাদের ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর রংপুরে আবারো বিয়ে হয় বর্ণার। কি কারণে গৃহবধূ প্রতিমাকে হত্যার চেষ্টা চালানো হয় তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে