করোনা: ইতালিতে সুস্থ প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার

ঢাকা, শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ২৩ ১৪২৭,   ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

করোনা: ইতালিতে সুস্থ প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার

ইসমাইল হোসেন স্বপন, ইতালি থেকে ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৩২ ২৯ মার্চ ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাসে ইতালিতে মৃতের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে আরো ৮৮৯ জন মানুষ মারা গেছেন। ইতালির স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া হিসেব অনুযায়ী, এ নিয়ে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১০ হাজার ২৩ জনে। সুস্থ হয়েছেন ১৩ হাজার ৩৮৪ জন।

ইতালিতে মোট করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এখন ৯২ হাজার ৪৭২ জন। গতকাল ছিল ৮৬ হাজার ৪৯৮। আক্রান্তদের মধ্যে ৩ হাজার ৮৫৬ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। একদিনে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫ হাজার ৯৭৪। মোট চিকিৎসাধীন ৭০ হাজার ৬৫ জন।

গত একদিনে গোটা ইতালিতে যত মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এরমধ্যে ৫৪২ জনই দেশটির উত্তরের অঞ্চল লোম্বার্ডির বাসিন্দা। ইতালিতে সবচেয়ে বেশি মানুষ এখানেই প্রাণ হারিয়েছেন। আজকের পাঁচ শতাধিকসহ অঞ্চলটিতে করোনাই আক্রান্ত হয়ে ৫ হাজার ৯৪৪ জন মারা গেছেন।

ইতালির ওই অঞ্চলের রাজধানী শহর হলো মিলান। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে আরো ২ হাজার ১১৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। লোম্বার্ডিতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৩৯ হাজার ৪১৫ বলে জানিয়েছে আলজাজিরা।

গত শুক্রবার ইতালিতে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সর্বোচ্চ ৯১৯ জন করোনা আক্রান্ত রোগী মারা যান। তবে করোনায় বিপর্যস্ত ইতালির চিকিৎসকরা আশার আলো দেখছেন। দেশটির চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীরা দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন করোনার থাবা থেকে ইতালিকে বাচাতে।

রিমিনির ভাইস মেয়র গ্লোরিয়া লিসি স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, ১০০ বছরের বৃদ্ধ সুস্থ হয়ে যাওয়ার পর আমরা সবাই এখন গোটা দেশে আশার আলো দেখছি।

লিসির কথায়, রোজ ঘুম থেকে উঠি খারাপ খবর শুনে। এই ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারাচ্ছেন মূলত বয়স্ক মানুষজনই। এরই মাঝে ১০০ বছরেরও কোনো এক ব্যক্তি সুস্থ হলেন। এ যেন সত্যিই খুশির খবর।

গত বছরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথমবারের মতো শনাক্ত হয় নভেল করোনাভাইরাস। মাত্র চার মাসের মধ্যেই বিশ্বের প্রায় ২০০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই মহামারি ভাইরাসটি। 

বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত অন্তত ৬ লাখ ৬৫ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন প্রায় ৩০ হাজারের বেশি মানুষ। তবে সুস্থও হয়েছেন ১ লাখ ৪২ হাজারের বেশি রোগী।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ