করোনায় শিক্ষার্থীরা সময় কাটাবেন যেভাবে

ঢাকা, শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭,   ১২ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

করোনায় শিক্ষার্থীরা সময় কাটাবেন যেভাবে

ফারুক রহমান ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:১৮ ৮ এপ্রিল ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সবাইকে ঘরে সময় কাটাতে হচ্ছে (কোয়ারেন্টাইন)। প্রিয় ক্যাম্পাস ছেড়ে শিক্ষার্থীদের চলে আসতে হয়েছে নিজ নিজ বাড়িতে। এখন বাড়িতে বসে বন্ধু, প্রিয়জন সবার থেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে থাকতে হচ্ছে নিঃসঙ্গ। কভিড-১৯ এর সংক্রমণ রোধে হোম কোয়ারেন্টাইনের এই সময়টাকে নানাভাবে কাজে লাগানো যায়।

বাড়িতে থাকার এই সময়টুকু যদি আনন্দঘন ও অর্থবহ করে তুলতে পারেন, তাহলে বিরক্তি বা ক্লান্তিও কেটে যাবে। এ সময়ে যেহেতু বন্ধু কিংবা আত্মীয়দের সঙ্গে আড্ডা দেয়া বা বেড়াতে যাওয়া সম্ভব নয়, তাই এসব বাদ দিয়ে শুধুমাত্র নিজের বাড়িতেই করা যাবে এমন কাজের পরিকল্পনা করতে পারেন। তাই জেনে নিন কীভাবে বাড়িতে থাকার দিনগুলোকে আনন্দঘন বা উপভোগ্য করবেন:

পরিবারকে সময় দেয়া

বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীকে পড়াশুনার চাপে পরিবারের থেকে দূরে থাকতে হয়। অনেক সময় তারা পরিবারের মানুষদের ঠিকমত খোঁজ-খবর রাখতে পারেন না। তাদেরকে ঠিকভাবে সময় দেয়াটাও হয়ে ওঠে না। তাই আপনি এখন সুযোগ পাচ্ছেন নিজের পরিবারকে সময় দেয়ার। পরিবারের লোকদের নিয়ে বাইরে কোথাও ঘুরতে বা খেতে যেতে না পারলেও পুরোনো অনেক স্মৃতি বা মনের জমা গল্প শেয়ার করতে পারেন। তাই এখন পরিবারের সদস্যদের সাথে মন খুলে আড্ডা দিন, সবার মনের কথা জানার চেষ্টা করুন।

বই পড়া

ইন্টারনেট ও এই প্রযুক্তির যুগে আপনি পুরোনো যে ভালো অভ্যাসটি হারিয়ে ফেলছেন, সেটি হলো বইপড়া। তাই এখন আবার সেই অভ্যাসটি ফিরিয়ে আনতে পারেন। ঘরে থেকে পড়ে নিতে পারেন একাডেমিক বইয়ের বাইরেও নিজের পছন্দের না পড়া বইগুলো। এতে আপনার জ্ঞানের জগৎ সমৃদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি সুন্দরভাবে কেটে যাবে সময়গুলো।

ছবি আঁকা

রং-তুলিতে নিজের কল্পনাকে বাস্তব রূপ দেয়া অনেকেরই শখ বা অভ্যাস। যদি ব্যস্ততার কারণে ছবি আঁকার সুযোগ আপনার না হয়ে ওঠে তবে এখন তো আপনার সেই ব্যস্ততা নেই। তাই ছবি এঁকে কাটাতে পারেন আপনার অবসর। এতে নিজের আঁকা ছবির সাথে জমে থাকবে আপনার কল্পনা ও স্মৃতি।

সিনেমা দেখা

পছন্দের কিছু সিনেমা দেখবেন কিন্তু সময়ে অভাবে আর দেখা হয়ে ওঠেনি? তাহলে এই সময়টাকে কাজে লাগান। পছন্দের সিনেমাগুলো দেখে ফেলুন। এতে নির্মোহ বিনোদন যেমন আপনাকে ফুরফুরে করে তুলবে তেমনি জানতে পারবেন অনেক কিছু।

রান্না করা

রান্না এখন আর গৃহিণীদের কাজ নয়। এটি এখন হয়ে দাঁড়িয়েছে স্মার্টনেসের অংশ। রান্না শেখাটাও এখন আর খুব একটা কঠিন কিছু না। অনলাইন বা ইউটিউব থেকে চমৎকার সব রেসিপির রান্না শিখে নিতে পারেন খুব সহজেই। এতে করে পরবর্তীতে অন্যদের যেমন সারপ্রাইজ দিতে পারবেন তেমনি আপনি শিখে নিতে পারলেন প্রয়োজনীয় ও নতুন কিছু।

গান শোনা

গান শুনে আপনার অবসর সময়টুকু কাটাতে পারেন। মন ভালো করে গান। এই সময়ে তাই পছন্দের গানগুলো শুনে নিতে পারেন। সময় কাটানোর পাশাপাশি মনও হবে প্রফুল্ল।

অসহায়দের সাহায্যে এগিয়ে আসা

করোনাভাইরাসের কারণে সব ধরণের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও গণপরিবহন বন্ধ থাকায় কর্মহীন হয়ে পরেছে দেশের অধিকাংশ মানুষ। ফলে অসহায় হয়ে খাদ্যাভাবে ভুগছেন নিম্ন-আয়ের মানুষেরা। এ সময়ে তাদের খোঁজ-খবর নেয়া অত্যন্ত জরুরি। তাদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসতে হবে দেশের মেধাবী শিক্ষার্থীদের। তাই এ সময়ে নিয়মিত আপনার আশেপাশের মানুষের খোঁজ-খবর নিন।

শরীর চর্চা করা

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো জরুরি। বিশেষজ্ঞদের মতে নিয়মিত শরীর চর্চা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। এছাড়া শরীর চর্চার মাধ্যমে নিজেকে ফিট রাখতে পারেন। তাই এই অবসর সময়ের কিছুটা সময় প্রতিদিন শরীর চর্চা করতে পারেন।

এর বাইরে পরিচিত ও আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু ও শিক্ষকদের সাথে মুঠোফোন বা অনলাইন মাধ্যমে যোগাযোগ রাখতে পারেন। সেই সাথে দেশ ও বিশ্বের সর্বশেষ খবরাখবরের সাথে আপডেট থাকার চেষ্টা করুন। এসবের পাশাপাশি নিজের প্রতি যত্নবান হোন। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকুন। ঘরে থাকুন, নিজে ভালো থাকুন; অন্যদের ভালো রাখুন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম